ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স (DeFi)-এ ইল্ড ফার্মিং কী?
সুচিপত্র
ভূমিকা
ইল্ড ফার্মিং কী?
টোটাল ভ্যালু লকড (TVL) কী?
ইল্ড ফার্মিং কিভাবে কাজ করে?
ইল্ড ফার্মিংয়ের আয় কিভাবে হিসাব করা হয়?
DeFi-এ সহায়ক জামানত গ্রহণ/কোলেটারালাইজেশন কী?
ইল্ড ফার্মিংয়ের ঝুঁকিসমূহ
ইল্ড ফার্মিংয়ের প্ল্যাটফর্ম এবং প্রোটোকল
শেষ কথা
ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স (DeFi)-এ ইল্ড ফার্মিং কী?
হোম
নিবন্ধ
ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স (DeFi)-এ ইল্ড ফার্মিং কী?

ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স (DeFi)-এ ইল্ড ফার্মিং কী?

প্রকাশিত হয়েছে Aug 12, 2020আপডেট হয়েছে Oct 17, 2022
15m

TL;DR
ইল্ড ফার্মিংয়ের মাধ্যমে আপনার ক্রিপ্টো দিয়ে আরো ক্রিপ্টো তৈরি করতে পারবেন। এই পদ্ধতিতে স্মার্ট কন্ট্রাক্ট নামক কম্পিউটার প্রোগ্রামের জাদুর মাধ্যমে অন্যদেরকে আপনার ফান্ড ধার দেয়া হয়। আপনার পরিষেবার বিনিময়ে, আপনি ক্রিপ্টো আকারে ফি আয় করেন। যথেষ্টই সহজ, তাই না? ঠিক আছে, একটু রয়ে সয়ে।

ইল্ড ফার্মাররা খুব জটিল কৌশল ব্যবহার করবে। তাদের আয় সর্বাধিক করার জন্য তারা তাদের ক্রিপ্টোগুলোকে ধার দেয়ার বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে চলাচলের উপরে রাখে। সেরা ইল্ড ফার্মিং কৌশল কোনটি সেই বিষয়ে তারা অত্যন্ত গোপনীয়তা বজায় রাখবে। কেন? কোনো কৌশল সম্পর্কে যত বেশি মানুষ জানবে, এটির কার্যকর হবার সম্ভাবনা তত কমতে থাকবে। ইল্ড ফার্মিং হল ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স (DeFi)-এর ওয়াইল্ড ওয়েস্ট। ফার্মাররা এখানে সেরা ফসল ফলানোর সুযোগের জন্য প্রতিযোগিতা করে।

আগ্রহী? নীচে আরো পড়ুন।


বিষয়বস্তু


ভূমিকা

ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স (DeFi) আন্দোলন ব্লকচেইন স্পেসে উদ্ভাবনের অগ্রভাগে রয়েছে। কোন বিষয়টি DeFi অ্যাপ্লিকেশনকে ইউনিক করে তোলে? এগুলো অনুমতিবিহীন, যার অর্থ হল যেকেউ (অথবা যেকোনো কিছু, যেমন কোনো স্মার্ট কন্ট্রাক্ট) যার ইন্টারনেট সংযোগ এবং একটি সমর্থিত ওয়ালেট রয়েছে তারা এগুলোর সাথে যোগাযোগ করতে পারে। উপরন্তু, এগুলোর সাধারণত কোনো কাস্টোডিয়ান বা মধ্যস্থতাকারীর উপরে আস্থা রাখার প্রয়োজন হয় না। অন্যভাবে বললে, এগুলো আস্থাবিহীন। সুতরাং, এই বৈশিষ্ট্যগুলোর মাধ্যমে নতুন কী কী ব্যবহার ক্ষেত্র পাওয়া যায়?

উদ্ভূত নতুন ধারণাগুলোর মধ্যে একটি হল ইল্ড ফার্মিং। অনুমতিবিহীন তারল্য প্রোটোকল ব্যবহার করে ক্রিপ্টোকারেন্সি হোল্ডিংয়ের মাধ্যমে পুরস্কার অর্জন করার এটি একটি নতুন উপায়। এটির মাধ্যমে ইথিরিয়ামে নির্মিত "মানি লেগোস" এর বিকেন্দ্রীভূত ইকোসিস্টেম ব্যবহার করে যে কেউ পরোক্ষ আয় করতে পারে। ফলস্বরূপ, ভবিষ্যতে বিনিয়োগকারী কিভাবে HODL করবে সে প্রক্রিয়াতে ইল্ড ফার্মিং পরিবর্তন আনতে পারে। কাজে লাগানো গেলে আপনার অ্যাসেট কেন ফেলে রাখবেন? 

তো, কোনো ইল্ড ফার্মাররা কিভাবে তাদের ফসলের তত্ত্বাবধান করে? তারা কী ধরনের ফলন আশা করতে পারে? আর আপনি যদি একজন ইল্ড ফার্মার হওয়ার কথা ভাবেন তবে কোথায় শুরু করবেন? এই নিবন্ধে আমরা এগুলো সব ব্যাখ্যা করবো।


ইল্ড ফার্মিং কী?

ইল্ড ফার্মিং, যাকে তারল্য মাইনিংও বলা হয়, ক্রিপ্টোকারেন্সি হোল্ডিংয়ের মাধ্যমে পুরস্কার তৈরি করার একটি পদ্ধতি। সহজ ভাষায এর অর্থ হল ক্রিপ্টোকারেন্সি লক করে পুরস্কার অর্জন করা।

এক অর্থে, ইল্ড ফার্মিংকে স্ট্যাকিং এর সাথে তুলনা করা যায়। তবে, ব্যাকগ্রাউন্ডে অনেক জটিলতা আছে। অনেক ক্ষেত্রেই, এটি তারল্য সরবরাহকারী (LP) নামে পরিচিত ব্যবহারকারীদের সাথে কাজ করে যারা তারল্য পুলে ফান্ড যোগ করে।

তারল্য পুল কী? এটি মূলত একটি স্মার্ট কন্ট্রাক্ট যেটিতে ফান্ড থাকে। পুলে তারল্য সরবরাহের বিনিময়ে, LP পুরস্কার পায়। এই পুরস্কার অন্তর্নিহিত DeFi প্ল্যাটফর্ম বা অন্য কোনো উৎস দ্বারা উৎপন্ন ফি থেকে আসতে পারে।

কোনো কোনো তারল্য পুল একাধিক টোকেনে তাদের পুরস্কার প্রদান করে। সেই পুরস্কার টোকেনগুলো তখন অন্যান্য তারল্য পুলে পুরস্কার অর্জন করতে জমা করা যেতে পারে। দেখতে পাচ্ছেন যে কেমন অবিশ্বাস্যভাবে জটিল কৌশল বেশ দ্রুত আবির্ভূত হতে পারে। কিন্তু মূল ধারণা হল এই যে, একজন তারল্য সরবরাহকারী তারল্য পুলে ফান্ড জমা করে এবং বিনিময়ে পুরস্কার অর্জন করে।

ইল্ড ফার্মিং সাধারণত ইথিরিয়ামে ERC-20 টোকেন ব্যবহার করে করা হয় এবং পুরস্কারগুলোও সাধারণত এক ধরনের ERC-20 টোকেন হয়। তবে ভবিষ্যতে এটির পরিবর্তন হতে পারে। কেন? আপাতত, এই ক্রিয়াকলাপটির অধিকাংশ ইথিরিয়াম ইকোসিস্টেমে ঘটছে। 

তবে, ক্রস-চেইন ব্রিজ এবং অন্যান্য অনুরূপ অগ্রগতি DeFi অ্যাপ্লিকেশনগুলোকে ভবিষ্যতে ব্লকচেইন-নিরপেক্ষ হওয়ার সুযোগ দিতে পারে। এর মানে হল যে এগুলো অন্যান্য ব্লকচেইনগুলোতে চলবে যেগুলো স্মার্ট কন্ট্রাক্টের ক্ষমতাগুলোকে সাপোর্ট করে।

ইল্ড ফার্মাররা সাধারণত অধিক ইল্ডের আশায় বিভিন্ন প্রোটোকলের মধ্যে তাদের ফান্ডগুলোকে অনেক বেশি আনা নেয়া করে। ফলস্বরূপ, DeFi প্ল্যাটফর্মগুলো তাদের প্ল্যাটফর্মে আরো পুঁজি আকৃষ্ট করার জন্য অন্যান্য অর্থনৈতিক প্রণোদনাও প্রদান করতে পারে। কেন্দ্রীভুত এক্সচেঞ্জের মতোই, তারল্য আরো বেশি তারল্যকে আকর্ষণ করে।


কোন বিষয়টি ইল্ড ফার্মিং অধিক বৃদ্ধি করে?

কম্পাউন্ড ফাইন্যান্সের গভর্নেন্স টোকেন COMP টোকেন চালু হওয়া ইল্ড ফার্মিংয়ে আকস্মিকভাবে প্রবল আগ্রহ তৈরি হবার কারণ হতে পারে। গভর্নেন্স টোকেন টোকেন হোল্ডারদেরকে গভর্নেন্সের অধিকার প্রদান করে। কিন্তু আপনি যদি নেটওয়ার্কটিকে যতটা সম্ভব বিকেন্দ্রীভূত করতে চান তবে কিভাবে এই টোকেনগুলো বিতরণ করবেন?

কোনো বিকেন্দ্রীভূত ব্লকচেইন দ্রুত শুরু করার একটি প্রচলিত উপায় হল তারল্যের প্রণোদনা দিয়ে এই গভর্নেন্স টোকেনগুলোকে অ্যালগরিদম-ভিত্তিক বিতরণ করা। এর প্রক্রিয়া প্রোটোকলে তারল্য সরবরাহ করে নতুন টোকেন "ফার্ম" করার জন্য তারল্য সরবরাহকারীদের আকৃষ্ট করে।

ইল্ড ফার্মিং এর উদ্ভাবন না করলেও, COMP চালু হওয়া এই ধরনের টোকেন বিতরণ মডেলের জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে দিয়েছে।  তারপর থেকে, অন্যান্য DeFi প্রজেক্টগুলো তাদের ইকোসিস্টেমগুলোতে তারল্য আকর্ষণ করার জন্য উদ্ভাবনী বিভিন্ন পরিকল্পনা নিয়ে এসেছে।


টোটাল ভ্যালু লকড (TVL) কী?

তো, DeFi ইল্ড ফার্মিং পরিস্থিতির সামগ্রিক অবস্থা পরিমাপ করার একটি ভালো উপায় কী? টোটাল ভ্যালু লকড (TVL)। এটি DeFi ধার দেওয়ার ও অন্যান্য মানি মার্কেটপ্লেসগুলোতে লক করা ক্রিপ্টোর পরিমাণ পরিমাপ করে।

এক অর্থে, TVL হল তারল্য পুলের সামগ্রিক তারল্য। এটি সামগ্রিকভাবে DeFi ও ইল্ড ফার্মিং মার্কেটের অবস্থা পরিমাপ করার একটি কার্যকর সূচক। এটি বিভিন্ন DeFi প্রোটোকলের "মার্কেট শেয়ার" তুলনা করার জন্যও একটি কার্যকর মেট্রিক।

TVL ট্র্যাক করার একটি ভালো জায়গা হল Defi পালস। কোন প্ল্যাটফর্মে সর্বোচ্চ পরিমাণ ETH বা অন্যান্য ক্রিপ্টোঅ্যাসেট DeFi-তে লক করা আছে তা আপনি চেক করতে পারবেন। এটি আপনাকে ইল্ড ফার্মিংয়ের বর্তমান অবস্থা সম্পর্কে একটি সাধারণ ধারণা দিতে পারে।

স্বাভাবিকভাবেই, যত বেশি মান লক করা, তত বেশি ইল্ড ফার্মিং চলছে। লক্ষণীয় যে আপনি ETH, USD বা এমনকি BTC-তেও TVL পরিমাপ করতে পারেন। এর প্রতিটি আপনাকে DeFi অর্থ বাজারের অবস্থার ভিন্ন ভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি প্রদান করবে।


ইল্ড ফার্মিং কিভাবে কাজ করে?

অটোমেটেড মার্কেট মেকার (AMM) নামক একটি মডেলের সাথে ইল্ড ফার্মিং ঘনিষ্ঠভাবে সম্পর্কিত। সাধারণত এতে তারল্য সরবরাহকারী (LPs) এবং তারল্য পুল জড়িত থাকে। আসুন দেখি এটি কিভাবে কাজ করে।

তারল্য সরবরাহকারীরা একটি তারল্য পুলে ফান্ড জমা করে। এই পুল এমন একটি মার্কেটপ্লেসকে চালিত করে যেখানে ব্যবহারকারীরা ধার দিতে, ধার নিতে বা টোকেন বিনিময় করতে পারে। এই প্ল্যাটফর্মগুলোর ব্যবহারের জন্য ফি লাগে, যেই ফি এরপরে তারল্য সরবরাহকারীদেরকে তারল্য পুলে তাদের অংশ অনুসারে প্রদান করা হয়। AMM কিভাবে কাজ করে এটি তার একটি ভিত্তি।

তবে, বাস্তবায়ন ব্যাপকভাবে ভিন্ন হতে পারে - আর এটি একটি নতুন প্রযুক্তি তা বলাই বাহুল্য। বর্তমান বাস্তবায়নের পরে উন্নতি করবে এমন নতুন নতুন পদক্ষেপ যে আমরা দেখবো সে বিষয়ে সন্দেহের কোনো অবকাশ নেই।

ফি-এর পাশাপাশি, তারল্য পুলে ফান্ড যোগ করার জন্য আরেকটি প্রণোদনা হতে পারে কোন নতুন টোকেনের বিতরণ। উদাহরণস্বরূপ, খোলা বাজারে কোনো টোকেন কেনার উপায় নাও থাকতে পারে। পাওয়া গেলেও খুবই অল্প পরিমাণে। অন্যদিকে, এটি কোনো নির্দিষ্ট পুলে তারল্য সরবরাহ করে জমা হতে পারে। 

বিতরণের নিয়ম সম্পূর্ণভাবে প্রোটোকল কিভাবে বাস্তবায়ন হয়েছে তার উপর নির্ভর করবে। মূল কথা হল যে তারল্য সরবরাহকারীরা পুলে যে পরিমাণ তারল্য সরবরাহ করছে তার উপর ভিত্তি করে রিটার্ন পান।

জমাকৃত ফান্ডগুলো সাধারণত USD-তে পেগ করা স্ট্যাবলকয়েন - যদিও এটি কোনো শর্ত নয়। DeFi-তে ব্যবহৃত প্রচলিত কিছু স্ট্যাবলকয়েন হল DAI, USDT, USDC, BUSD, এবং অন্যান্য। কিছু কিছু প্রোটোকল সিস্টেমে আপনার জমাকৃত মুদ্রার প্রতিনিধিত্ব করা টোকেন মিন্ট করবে। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি কম্পাউন্ডে DAI জমা করেন, তাহলে আপনি cDAI বা কম্পাউন্ড DAI পাবেন। কম্পাউন্ডে আপনি ETH জমা করলে cETH পাবেন।

আপনি নিশ্চই ধারণা করতে পারেন, এটি অনেক জটিল হতে পারে। আপনি আপনার cDAI অন্য একটি প্রোটোকলে জমা দিতে পারেন যা আপনার cDAI-এর প্রতিনিধিত্ব করার জন্য এমন কোনো তৃতীয় টোকেন মিন্ট করে যেটি আপনার DAI-এর প্রতিনিধিত্ব করে। এই প্রক্রিয়াতেই চলে। এই চেইনগুলো সত্যিই জটিল এবং অনুসরণ করা কঠিন হয়ে হতে পারে।


ইল্ড ফার্মিংয়ের আয় কিভাবে হিসাব করা হয়?

সাধারণত, প্রাক্কলিত ইল্ড ফার্মিংয়ের আয় বাৎসরিকভাবে হিসাব করা হয়। আপনি এক বছরের মধ্যে যে আয় আশা করতে পারেন তা এটি অনুমান করে।

প্রচলিতভাবে ব্যবহৃত কিছু মেট্রিক হল বার্ষিক শতাংশ হার (APR) এবং বার্ষিক শতাংশ ইল্ড (APY)। তাদের মধ্যে পার্থক্য হল যে APR চক্রবৃদ্ধির প্রভাবকে বিবেচনা করে না, আর APY সেটি করে। এই ক্ষেত্রে চক্রবৃদ্ধির অর্থ হল, আরো বেশি রিটার্ন জেনারেট করার জন্য মুনাফা সরাসরি পুনঃবিনিয়োগ করা। তবে, সচেতন থাকুন যে APR ও APY একই অর্থে ব্যবহার করা হতে পারে।

এটা মনে রাখা প্রয়োজন যে এগুলো শুধুমাত্র প্রাক্কলন এবং অনুমান। এমনকি স্বল্প-মেয়াদী পুরস্কার সঠিকভাবে অনুমান করাও বেশ কঠিন। কারণ? ইল্ড ফার্মিং একটি অত্যন্ত প্রতিযোগিতামূলক এবং দ্রুত গতির বাজার, এবং পুরস্কারও খুব দ্রুত ওঠানামা করতে পারে। ইল্ড ফার্মিংয়ে কোনো কৌশল যদি কিছু সময়ের জন্য খুব কার্যকর হয় করে, তাহলে অনেক ফার্মার এই সুযোগ নিতে ঝাঁপিয়ে পড়বে এবং এতে করে উচ্চ আয়ের ইল্ড বন্ধ হয়ে যেতে পারে। 

APR ও APY লিগ্যাসি মার্কেট থেকে আসায় DeFi-এর রিটার্ন গণনার জন্য নিজস্ব মেট্রিক্স বের করতে হতে পারে। DeFi-এর দ্রুত গতির কারণে, সাপ্তাহিক বা এমনকি দৈনিক আনুমানিক রিটার্ন অধিক অর্থপূর্ণ হতে পারে।


DeFi-এ সহায়ক জামানত গ্রহণ/কোলেটারালাইজেশন কী?

সাধারণত, আপনি কোনো অ্যাসেট ধার করলে আপনাকে আপনার ঋণ কভার করার জন্য জামানত রাখতে হয়। এটি মূলত আপনার ঋণের বিমা হিসেবে কাজ করে। এটা প্রাসঙ্গিক কেন? আপনি আপনার ফান্ডগুলো কোন প্রোটোকলে সরবরাহ করছেন তার উপর এটি নির্ভর করে। তবে আপনাকে আপনার সহায়ক জামানত গ্রহণ/কোলেটারালাইজেশনের অনুপাতের উপর ঘনিষ্ঠ নজর রাখতে হবে। 

আপনার জামানতের ভ্যালু প্রোটোকল কর্তৃক দেয়া শর্তের থ্রেশহোল্ডের নীচে পড়লে, আপনার জামানত খোলা বাজারে তরলীকরণ হয়ে যেতে পারে। তরলীকরণ এড়াতে আপনি কী করতে পারেন? আপনি আরো জামানত যোগ করতে পারেন।

পুনরাবৃত্তির জন্য, প্রতিটি প্ল্যাটফর্মের নিজস্ব নিয়ম থাকবে, অর্থাত্, তাদের নিজস্ব শর্তের সহায়ক জামানত গ্রহণ/কোলেটারালাইজেশন অনুপাত। উপরন্তু, তারা সাধারণত ওভার-কোলেটারালাইজেশন নামক একটি ধারণা নিয়ে কাজ করে। এর মানে হল যে ঋণগ্রহীতাদের তাদের ধারের পরিমাণের চেয়ে বেশি ভ্যালু জমা করতে হবে। কেন? ধ্বংসাত্মক মার্কেট ক্র্যাশ এর ঝুঁকি কমাতে যা সিস্টেমে প্রচুর পরিমাণে জামানত তরলীকরণ করে।

ওকে, ধরা যাক যে আপনি যে লেনদেন প্রোটোকলটি ব্যবহার করছেন তার জন্য 200% সহায়ক জামানত গ্রহণ/কোলেটারালাইজেশন অনুপাত প্রয়োজন। এর মানে হল প্রতি 100 USD ভ্যালুর বিপরীতে আপনি 50 USD ধার নিতে পারবেন। তবে, লিকুইডেশন ঝুঁকি আরো বেশি করে কমাতে প্রয়োজনের চেয়ে অধিক জামানত যোগ করা সাধারণত নিরাপদ। তা সত্ত্বেও, অনেক সিস্টেম সম্পূর্ণ প্ল্যাটফর্মটিকে তরলকরণের ঝুঁকি থেকে তুলনামূলকভাবে নিরাপদ রাখতে খুব উচ্চ সহায়ক জামানত গ্রহণ/কোলেটারালাইজেশন অনুপাত (যেমন 750%) ব্যবহার করবে।


ইল্ড ফার্মিংয়ের ঝুঁকিসমূহ

ইল্ড ফার্মিং সহজ নয়। সবচেয়ে লাভজনক ইল্ড ফার্মিংয়ের কৌশলগুলো অত্যন্ত জটিল এবং শুধুমাত্র অভিজ্ঞ ব্যবহারকারীদের জন্য সুপারিশ করা হয়। উপরন্তু, ইল্ড ফার্মিং সাধারণত কাজে লাগানোর মত প্রচুর মূলধন রয়েছে এমন ব্যক্তিদের জন্য বেশি উপযোগী (যেমন, হোয়েল)।

যতটা সহজ মনে হয় ইল্ড ফার্মিং ততটা সহজ নয় এবং আপনি কী করছেন তা যদি বুঝতে না পারেন, তাহলে সম্ভবত আপনি লোকসান করবেন। আমরা শুধু আলোচনা করেছি কিভাবে আপনার সহায়ক জামানত তরলীকরণ হতে পারে। কিন্তু আর কোন ঝুঁকি সম্পর্কে আপনার সচেতন হওয়া প্রয়োজন?

ইল্ড ফার্মিংয়ের একটি নিশ্চিত ঝুঁকি হল স্মার্ট কন্ট্রাক্ট। DeFi-এর অন্তর্গত বৈশিষ্ট্যের কারণে, অনেক প্রোটোকলকে ছোট দল তৈরি ও ডেভলপ করে। বাজেটে থাকে সীমিত। এটি স্মার্ট কন্ট্রাক্ট বাগের ঝুঁকি বাড়াতে পারে।

এমনকি নামকরা অডিটিং ফার্মগুলোর নিরীক্ষা করা বড় প্রোটোকলগুলোর ক্ষেত্রেও, দুর্বলতা ও বাগ সবসময়েই পাওয়া যায়। ব্লকচেইনের অপরিবর্তনীয় প্রকৃতির কারণে, এতে ব্যবহারকারীর ফান্ডের লোকসান হতে পারে। কোনো স্মার্ট কন্ট্রাক্টে আপনার ফান্ড লক করার সময় আপনাকে এটি বিবেচনা করতে হবে।

এছাড়াও, DeFi-এর সবচেয়ে বড় সুবিধাগুলোর মধ্যে একটি এর সবচেয়ে বড় ঝুঁকিও। এটিকে কম্পোজেবিলিটি বলা হয়। চলুক দেখা যাক ইল্ড ফার্মিংয়ে এটি কিভাবে প্রভাব ফেলে।

যেমনটি আমরা আগে আলোচনা করেছি, DeFi প্রোটোকল অনুমতিবিহীন এবং একে অপরের সাথে নির্বিঘ্নে ইন্টিগ্রেট হতে পারে। এর মানে হল যে সমগ্র DeFi ইকোসিস্টেম তার প্রতিটি বিল্ডিং ব্লকের উপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল। আমরা যখন বলি যে এই অ্যাপ্লিকেশনগুলো কোম্পোজযোগ্য – তখন আমরা এটির কথাই বলি। অর্থাৎ তারা সহজেই একসাথে কাজ করতে পারে।

এটি কোনো ঝুঁকি কেন? আসলে, শুধুমাত্র একটি বিল্ডিং ব্লক উদ্দেশ্য অনুযায়ী কাজ না করলে, পুরো ইকোসিস্টেম ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এটি ইল্ড ফার্মার ও তারল্য পুলের জন্য সবচেয়ে বড় ঝুঁকিগুলোর মধ্যে একটি। যে প্রোটোকলে আপনার ফান্ড জমা করছেন, আপনার যে কেবল সেটিকেই বিশ্বাস করতে হবে তা নয়, এটি নির্ভর করতে পারে এমন অন্য সবগুলোর উপরেও বিশ্বাস করতে হবে।


ক্রিপ্টোকারেন্সিতে শুরু করতে চাইছেন? Binance-এ বিটকয়েন ক্রয় করুন!


ইল্ড ফার্মিংয়ের প্ল্যাটফর্ম এবং প্রোটোকল

আপনি এই ইল্ড ফার্মিং পুরস্কার কিভাবে উপার্জন করতে পারেন? আসলে, ইল্ড ফার্মিং করার জন্য নির্দিষ্ট কোনো পদ্ধতি নেই। প্রকৃতপক্ষে, ইল্ড ফার্মিংয়ের কৌশলগুলো মুহুর্তের মধ্যে পরিবর্তিত হতে পারে। প্রতিটি প্ল্যাটফর্ম ও কৌশলের নিজস্ব নিয়ম ও ঝুঁকি থাকবে। আপনি যদি ইল্ড ফার্মিং শুরু করতে চান, তাহলে আপনাকে অবশ্যই বিকেন্দ্রীভূত তারল্য প্রোটোকল কিভাবে কাজ করে তার সাথে পরিচিত হতে হবে।

আমরা ইতোমধ্যেই মৌলিক ধারণাটি জানি। আপনি একটি স্মার্ট কন্ট্রাক্টে ফান্ড জমা করেন এবং বিনিময়ে পুরস্কার পান। কিন্তু বাস্তবায়ন ব্যাপকভাবে আলাদা হতে পারে। সে কারণে, আপনার কষ্টার্জিত ফান্ড অন্ধভাবে জমা করা এবং উচ্চ রিটার্নের আশা করা সাধারণত কার্যকর কোনো ধারণা নয়। ঝুঁকি ব্যবস্থাপনার মৌলিক নিয়ম অনুযায়ী, আপনাকে আপনার বিনিয়োগের নিয়ন্ত্রণে থাকতে হবে।

তো, ইল্ড ফার্মারদের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্মগুলো কী কী? এটি বিস্তৃত কোনো তালিকা নয়, শুধুমাত্র প্রোটোকলের একটি সংগ্রহ যা ইল্ড কৌশলের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ মাত্র।


কম্পাউন্ড ফাইন্যান্স

কম্পাউন্ড একটি অ্যালগরিদমভিত্তিক অর্থের বাজার যা ব্যবহারকারীদেরকে ধার দিতে এবং অ্যাসেট ধার করার সুযোগ প্রদান করে। ইথিরিয়াম ওয়ালেট থাকা যে কেউ কম্পাউন্ডের তারল্য পুলে অ্যাসেট সরবরাহ করে পুরস্কার অর্জন করতে পারে যা অবিলম্বে চক্রবৃদ্ধি আয় করা শুরু করে। হার চাহিদা ও যোগানের উপর ভিত্তি করে অ্যালগরিদম-ভিত্তিকভাবে সমন্বয় করা হয়।

কম্পাউন্ড ইল্ড ফার্মিং ইকোসিস্টেমের মূল প্রোটোকলগুলোর মধ্যে একটি।


MakerDAO

মেকার হল একটি বিকেন্দ্রীভূত ক্রেডিট প্ল্যাটফর্ম যা অ্যালগরিদমভিত্তিকভাবে USD-এর মূল্যের সাথে পেগ করা স্ট্যাবলকয়েন DAI তৈরিতে সাপোর্ট দেয়। যে কেউ কোনো মেকার ভল্ট খুলতে পারে যেখানে তারা সহায়ক জামানত অ্যাসেট, যেমন ETH, BAT, USDC, বা WBTC লক করে। তাদের লক করা এই জামানতের বিপরীতে ঋণ হিসেবে তারা DAI তৈরি করতে পারে। এই ঋণের জন্য সময়ের সাথে সাথে সুদ ধার্য হয় যেটিকে স্টেবিলিটি ফি বলা হয় – যার হার MKR টোকেন হোল্ডারদের দ্বারা সেট করা হয়।

ইল্ড ফার্মাররা ইল্ড ফার্মিংয়ের কৌশলগুলোতে ব্যবহার করার জন্য DAI মিন্ট করতে মেকার ব্যবহার করতে পারে।


সিনথেটিক্স

সিন্থেটিক্স হল একটি সিন্থেটিক অ্যাসেট প্রোটোকল। এটি যে কাউকে সহায়ক জামানত হিসেবে সিন্থেটিক্স নেটওয়ার্ক টোকেন (SNX) বা ETH লক (স্ট্যাক) করার এবং বিপরীতে সিন্থেটিক অ্যাসেট মিন্ট করার সুযোগ প্রদান করে। কোনগুলো সিন্থেটিক অ্যাসেট হতে পারে? নির্ভরযোগ্য প্রাইস ফিড থাকা যেকোনো কিছুই। এর ফলে কার্যত যেকোনো ফাইন্যান্সিয়াল অ্যাসেটই সিন্থেটিক্স প্ল্যাটফর্মে যুক্ত হতে পারে।

সিন্থেটিক্স ভবিষ্যতে ইল্ড ফার্মিংয়ের জন্য সকল ধরণের অ্যাসেট ব্যবহার করার অনুমতি দিতে পারে। ইল্ড ফার্মিংয়ের কৌশলে আপনার দীর্ঘমেয়াদী গোল্ড ব্যাগগুলো ব্যবহার করতে চান? সিন্থেটিক অ্যাসেট তার উপায় হতে পারে।


Aave

ধার দেওয়া এবং ধার নেওয়ার জন্য Aave একটি বিকেন্দ্রীভূত প্রোটোকল। মার্কেটের বর্তমান পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে সুদের হার অ্যালগরিদম-ভিত্তিকভাবে সমন্বয় করা হয়। ঋণদাতারা তাদের ফান্ডের বিনিময়ে "aTokens" পান। এই টোকেনগুলো জমা হবার সাথে সাথে উপার্জন ও চক্রবৃদ্ধি সুদ শুরু করে। Aave ফ্ল্যাশ লোনের মত অন্যান্য আরো উন্নত ফাংশনালিটির সুযোগ দেয়।

একটি বিকেন্দ্রীভূত ঋণ দেয়া ও ধার নেয়ার প্রোটোকল হিসেবে, Aave ব্যাপকভাবে ইল্ড ফার্মারদের দ্বারা ব্যবহৃত হয়।


Uniswap

Uniswap একটি বিকেন্দ্রীভূত বিনিময় (DEX) প্রোটোকল যেখানে আস্থাবিহীন টোকেন সোয়াপ করা যায়। তারল্য সরবরাহকারীরা মার্কেট তৈরি করতে সমতুল্য ভ্যালুর দুটি টোকেন জমা করে। ট্রেডাররা তখন সেই তারল্য পুলের বিপরীতে ট্রেড করতে পারে। তারল্য সরবরাহের বিনিময়ে, তরলতা প্রদানকারীরা তাদের পুলে সম্পন্ন হওয়া ট্রেড থেকে ফি উপার্জন করে।

Uniswap তার ঝামেলাবিহীন প্রকৃতির কারণে আস্থাবিহীন টোকেন সোয়াপের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্ল্যাটফর্মগুলোর মধ্যে একটি। ইল্ড ফার্মিংয়ের কৌশলের জন্য এটি কাজের হতে পারে।


কার্ভ ফাইন্যান্স

কার্ভ ফাইন্যান্স একটি বিকেন্দ্রীভূত বিনিময় প্রোটোকল যা বিশেষভাবে দক্ষ স্ট্যাবলকয়েন সোয়াপের জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। কার্ভ ব্যবহারকারীরা তুলনামূলকভাবে কম স্লিপেজ দিয়ে উচ্চ-মূল্যের স্ট্যাবলকয়েন অদলবদল করতে পারে যা অন্যান্য অনুরূপ প্রোটোকল যেমন Uniswap থেকে ভিন্ন।

আপনি নিশ্চই বুঝতে পারছেন যে, ইল্ড ফার্মিংয়ে প্রচুর স্ট্যাবলকয়েনের কারণে, কার্ভ পুলগুলো অবকাঠামোর একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ।


ব্যালেন্সার

ব্যালেন্সার, Uniswap ও Curve-এর মত একটি তারল্য প্রোটোকল। তবে, মূল পার্থক্য হল এটি তারল্য পুলে কাস্টম টোকেন বরাদ্দের সুযোগ দেয়। এটি তারল্য সরবরাহকারীদেরকে Uniswap-এর মত 50/50 বরাদ্দের পরিবর্তে কাস্টোম ব্যালেন্সার পুল তৈরি করতে দেয়। Uniswap-এর মতই, LP তাদের তারল্য পুলে যে লেনদেন হয় তার জন্য ফি আয় করে।

তারল্য পুল তৈরিতে এটি যে নমনীয়তার নিয়ে আসে সে কারণে, ব্যালান্সার ইল্ড ফার্মিং কৌশলের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ উদ্ভাবন।


Yearn.finance

Aave, Compound এবং অন্যান্যদের মতো Yearn.finance হল ঋণ প্রদানের পরিষেবার অ্যাগ্রিগেটরদের একটি বিকেন্দ্রীভূত ইকোসিস্টেম। এটির লক্ষ্য হল অ্যালগরিদম-ভিত্তিকভাবে সবচেয়ে লাভজনক ঋণ প্রদানের পরিষেবাগুলো খুঁজে বের করে টোকেন ধার দেয়াকে আরো দক্ষ করা। জমা করার পরে ফান্ডকে yTokens-এ রূপান্তরিত করা হয় যা পর্যায়ক্রমে মুনাফা বাড়াতে রিব্যালেন্স করে।

Yearn.finance সেই ফার্মারদের জন্য উপযোগী যারা এমন একটি প্রোটোকল চান যেটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে তাদের জন্য সেরা কৌশল বাছাই করে।


শেষ কথা

আমরা ক্রিপ্টোকারেন্সি স্পেসের সর্বশেষ উন্মাদনা – ইল্ড ফার্মিং নিয়ে আলাপ করলাম।

এই বিকেন্দ্রীভূত আর্থিক বিপ্লব আর কী কী আনতে পারে? বর্তমান উপাদানগুলোর উপর নির্মিত নতুন অ্যাপ্লিকেশনগুলো ভবিষ্যতে কী হতে পারে তা বলা অসম্ভব। তা সত্ত্বেও, আস্থাবিহীন তারল্য প্রোটোকল ও অন্যান্য DeFi পণ্যগুলো নিশ্চিতভাবেই ফাইন্যান্স, ক্রিপ্টোইকোনমিক্স এবং কম্পিউটার বিজ্ঞানে এখনও পর্যন্ত হওয়া সর্বশেষ অগ্রগতি।

নিঃসন্দেহে, DeFi অর্থ বাজারগুলো ইন্টারনেট সংযোগ থাকা যে কারও জন্য একটি অধিক স্বাধীন ও অ্যাক্সেসযোগ্য ফাইন্যান্সিয়াল ব্যবস্থা তৈরি করতে সহায়তা করতে পারে যে ব্যবস্থা সবার জন্য উপলভ্য।


DeFi এবং ইল্ড ফার্মিং সম্পর্কে আরো প্রশ্ন আছে? আস্ক অ্যাকাডেমি দেখুন!