কিভাবে দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করবেন
সুচিপত্র
ভূমিকা
দায়িত্বশীল ট্রেডিং কী?
Binance কিভাবে সবাইকে দায়িত্বশীলভাবে ট্রেড করতে সাহায্য করে?
আপনাকে দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করতে সাহায্য করানোর 8টি টিপস
আপনার ট্রেডিং অ্যাকাউন্ট ও ওয়ালেট সুরক্ষিত করুন
একটি ট্রেডিং পরিকল্পনা তৈরি করুন
স্টপ-লিমিট অর্ডার ব্যবহার করুন
আপনার নিজস্ব গবেষণা করুন
আপনার পোর্টফোলিওকে বৈচিত্র্যময় করুন
FOMO এড়িয়ে চলুন
লিভারেজ বুঝুন
কুলিং-অফ পিরিয়ড ব্যবহার করুন
শেষ কথা
কিভাবে দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করবেন
হোম
নিবন্ধ
কিভাবে দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করবেন

কিভাবে দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করবেন

প্রকাশিত হয়েছে Aug 6, 2021আপডেট হয়েছে Dec 1, 2022
11m

TL;DR

ক্রিপ্টো ক্রয় বা বিক্রয় করার সময় দায়িত্বশীলভাবে ট্রেড করা আপনার সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার হওয়া উচিত। দায়িত্বের সাথে ট্রেডিংয়ের অধিকাংশ অংশই সঠিক পরিকল্পনার সাথে জড়িত। একটি ট্রেডিং পরিকল্পনা তৈরি করা আপনাকে পরবর্তীতে আপনার কর্মের জন্য দায়বদ্ধ রাখতে সাহায্য করবে।

আপনার মাথা ঠান্ডা থাকার সময় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করলে আপনার ব্যবসাকে প্রভাবিত করে এমন আবেগ আপনি এড়াতে পারবেন। আপনার নিজের গবেষণা, বৈচিত্র্যকরণ, স্টপ-লিমিট অর্ডার ব্যবহার করা এবং যেখানে সম্ভব FOMO এড়ানোর কথা বিবেচনা করা উচিত। 

আপনি যদি লিভারেজ ব্যবহার করে ট্রেড করেন তবে নিশ্চিত করুন যে আপনি সংশ্লিষ্ট ঝুঁকিগুলো সম্পূর্ণরূপে বুঝতে পারছেন। আপনি যে পরিমাণ ট্রেড করেন তার উপর আপনাকে আরো নিয়ন্ত্রণ দেওয়ার জন্য Binance ফিচার অন্তর্ভুক্ত করেছে, যেমন কুলিং-অফ পিরিয়ড। এই বিকল্পটি আপনাকে কোনো নির্দিষ্ট সময়ের জন্য আপনার ফিউচার অ্যাকাউন্ট লক করার সুযোগ প্রদান করে।


ভূমিকা

আপনি যতই ট্রেড করেন না কেন, আপনি যে দায়িত্বের সাথে তা করছেন তা নিশ্চিত করার জন্য এটি সর্বোত্তম অনুশীলন। সহজ টিপস ও পদ্ধতির মাধ্যমে, আপনি অপ্রয়োজনীয় ঝুঁকি কমাতে পারেন এবং নিশ্চিত করতে পারেন যে আপনি কেবল ততটুকুই ট্রেড করছেন যেটুকু হারানোর ক্ষমতা আপনার আছে। কেউ কেউ খুব সহজেই নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। আপনি কিভাবে আপনার ট্রেডিং আরো ভালভাবে পরিচালনা করতে পারেন তা শিখতে চাইলে, আপনার সঠিক সীমা নির্ধারণ করতে এবং আপনার সামগ্রিক দায়িত্ব উন্নত করতে আমাদের গাইড পড়ুন।

cta1


দায়িত্বশীল ট্রেডিং কী?

দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করা মানে শুধু কতটা কিনছেন এবং বিক্রি করছেন তা দেখাই নয়। আবেগের উপর ভিত্তি করে কাজ করার পরিবর্তে আপনার ট্রেডিং আচরণের নিয়ন্ত্রণে থাকা উচিত। এছাড়াও আপনাকে দায়িত্ব নিতে হবে এবং বুঝতে হবে যে আপনি যে ট্রেডিং কার্যকলাপ করছেন তা সত্যিই আপনার জন্য কাজ করে কিনা।

অনেক উপায়ে আপনি ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগ বা ব্যবসা করতে পারেন। ফিউচার এবং মার্জিন ট্রেডিংয়ের মতো বিকল্পগুলো লিভারেজের মাধ্যমে বড় রিটার্ন প্রদান করতে পারলেও এগুলো খুব ঝুঁকিপূর্ণ। কোনো কোনো ট্রেডারের জন্য এটিকে দায়িত্বের সাথে ব্যবহার করা কষ্টকর। স্পট মার্কেটে ক্রিপ্টো কেনা এবং HODLing করা একটি নিরাপদ বিকল্প এবং আপনার ঝুঁকির প্রোফাইলের জন্য অধিক উপযুক্ত হতে পারে।

এটি ট্রেডারদের এমন আচরণ এবং ক্রিয়াকলাপ থেকে বিরত থাকতে সক্ষম করে যেগুলো দায়িত্বজ্ঞানহীন ট্রেডের দিকে নিয়ে যেতে পারে। দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করার একটি বড় অংশ হল কখন আপনার সিদ্ধান্ত নেতিবাচকভাবে প্রভাবিত হতে পারে তখন তা শনাক্ত করা। এই দক্ষতা সময় ও অভিজ্ঞতার সাথে আসে এবং নতুন ট্রেডারদের মধ্যে আবেগপ্রবণভাবে ট্রেড করা বা অনুভূতির উপর নির্ভর করা খুবই প্রচলিত। এটি আপনি যত বেশি এড়িয়ে চলতে পারবেন ততই ভালো।


Binance কিভাবে সবাইকে দায়িত্বশীলভাবে ট্রেড করতে সাহায্য করে?

ব্যবহারকারীদের সর্বোত্তম অনুশীলন সম্পর্কে শিক্ষিত এবং গাইড করার জন্য Binance তার দায়িত্ব গুরুত্ব সহকারে নেয়। দায়িত্বশীল ক্রিপ্টো পণ্য তৈরির পাশাপাশি, Binance ছিল প্রথম ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জ যেখানে ব্যবহারকারীদেরকে ট্রেডিং বৈশিষ্ট্যের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হয়। Binance অ্যাকাডেমি বিনামূল্যে তথ্য প্রদান করে যা বিশ্বব্যাপী লক্ষ লক্ষ পাঠককে বিনিয়োগ এবং ট্রেডের নিরাপদ উপায় সম্পর্কে সক্রিয়ভাবে শিক্ষিত করে। কোনো ক্রিপ্টোকারেন্সিতে বিনিয়োগ করতে চাওয়া ব্যবহারকারীরা নিরপেক্ষ, বিস্তারিত রিপোর্টের জন্য Binance গবেষণা পড়তে পারেন।

ঝুঁকিতে থাকতে পারে এমন ট্রেডারদের সাহায্য করার জন্য Binance নির্দিষ্ট আসক্তি-বিরোধী বৈশিষ্ট্যগুলোও কাজে লাগায়। উদাহরণস্বরূপ, আপনি যদি পরপর একাধিক লোকসান করেন তাহলে Binance সাময়িকভাবে আপনার ট্রেডিং কার্যকলাপ বন্ধ করতে পারে। এই পদ্ধতিটি আবেগপ্রবণ ট্রেডিং আচরণের বিরুদ্ধে লড়াই করতে সাহায্য করে। এটি Binance কর্তৃক দায়িত্বশীল ট্রেডিংকে গুরুত্ব সহকারে নেওয়ার একটি উপায় মাত্র।

আপনি আমাদের দায়িত্বশীল ট্রেডিং-এর জন্য ডেডিকেটেড পেজে আরো পড়তে পারেন। 


আপনাকে দায়িত্বের সাথে ক্রিপ্টো ট্রেড করতে সাহায্য করানোর 8টি টিপস

ক্রিপ্টোকারেন্সি ট্রেড করার জন্য আপনাকে দায়িত্বশীলভাবে আপনার ট্রেডিং আচরণের একাধিক দিক নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এটি শুধুমাত্র ক্রয় বা বিক্রয় বাটন দিয়েই শুরু ও শেষ হয় না। আপনার রুটিনে যতটা সম্ভব নিচের টিপসগুলোকে চেষ্টা করুন এবং অন্তর্ভুক্ত করুন। অনেকগুলো পরামর্শ মত মনে হতে পারে, তবে তারা আপনার ট্রেডিং দক্ষতা উন্নত করতে সাহায্য করবে।


আপনার ট্রেডিং অ্যাকাউন্ট ও ওয়ালেট সুরক্ষিত করুন

আপনি এমনকি ট্রেডিং শুরু করার আগে যা করতে পারেন তা হলো আপনার অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত করা। আপনি যতই দায়িত্বের সাথে আপনার ব্যবসার পরিকল্পনা করুন না কেন, আপনার ফান্ড, অ্যাকাউন্ট এবং পাসওয়ার্ড সংকটাপন্ন হলে তা মূল্যহীন। এটি করার একাধিক উপায় রয়েছে, যার মধ্যে রয়েছে টু-ফ্যাক্টর অথেন্টিকেশন (2FA), একটি শক্তিশালী পাসওয়ার্ড তৈরি করা এবং উত্তোলমের ঠিকানাগুলোকে হোয়াইটলিস্ট করা। এমনকি আপনার ক্রিপ্টো SAFU আছে তা নিশ্চিত করতে আমরা আপনার Binance অ্যাকাউন্টের নিরাপত্তা বাড়াতে 15 টি টিপস সংগ্রহ করেছি।

আপনি যদি বাইরের কোনো ক্রিপ্টোকারেন্সি ওয়ালেটও ব্যবহার করেন তবুও আপনার প্রাইভেট কী-তে একই নিয়ম প্রযোজ্য হবে। আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টের তথ্যের মতোই আপনার প্রাইভেট কী বা সিড ফ্রেজ অন্যদের সাথে শেয়ার করবে না। আপনার প্রয়োজন ও নিরাপত্তার স্তরের উপর নির্ভর করে আপনি আমাদের প্রস্তাবিত BNB স্মার্ট চেইন ওয়ালেটের তালিকা থেকে একটি ডিজিটাল ওয়ালেট বেছে নিতে পারেন। আপনার কাছে অপশন থাকলে সেগুলোকে সুরক্ষিত রাখতে আপনি কোনো হার্ডওয়্যার ওয়ালেটে অতিরিক্ত ফান্ড স্টোর করতে পারেন।


একটি ট্রেডিং পরিকল্পনা তৈরি করুন

আপনার আবেগকে আপনার ট্রেডিংয়ে হস্তক্ষেপ করতে না দেওয়ার সর্বোত্তম উপায় হলো একটি পরিকল্পনা তৈরি করা এবং তাতে লেগে থাকা। এতে করে হঠাৎ লাভ, লোকসান, গুজব বা FUD আপনার সিদ্ধান্ত গ্রহণে ব্যাঘাত ঘটাতে পারবে না। ট্রেডিং পরিকল্পনায় কী কী আছে?

আপনার পরিকল্পনায় আপনি যে ধরনের ট্রেড করতে চান, ট্রেড করার শর্তাবলী এবং আপনার ট্রেডিং উদ্দেশ্যগুলো থাকতে হবে। আপনার ঝুঁকির প্রোফাইল এবং ট্রেডিং স্টাইল আপনার সীমা নির্ধারণ করবে। ঠান্ডা মাথায় মনের আপনার ট্রেডিং পরিকল্পনা তৈরি করতে হবে এবং আপনি যা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তা পরবর্তী তারিখে অনুসরণ করতে পেরে সন্তুষ্ট থাকবেন। আপনার ট্রেডিং পরিকল্পনায় যা যা অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে:

  • যদি করতেই চান তাহলে কতটা লিভারেজ ব্যবহার করতে চান

  • নির্দিষ্ট ট্রেডের জন্য প্রবেশ ও প্রস্থান মূল্য

  • মোট মূলধনের শতাংশ হিসেবে সর্বাধিক বিনিয়োগের পরিমাণ

  • আপনার পোর্টফোলিও কতটা বৈচিত্র্যময়

  • আপনার ক্রিপ্টো অ্যাসেট বরাদ্দ

  • কখন ট্রেডিং বন্ধ করতে হবে (সময়, পরিমাণ, ইত্যাদি)

  • সর্বোচ্চ লোকসান

  • আপনি যে পণ্য বা অ্যাসেট ট্রেড করেন


স্টপ-লিমিট অর্ডার ব্যবহার করুন

আপনি সহজেই আপনার ট্রেডিংয়ের উপর অধিক নিয়ন্ত্রণের জন্য Binance-এ স্টপ-লিমিট অর্ডার ব্যবহার করতে পারেন। আপনি 24/7 সবসময় স্ক্রিনে থাকতে পারবেন না, এবং ক্রিপ্টো অত্যন্ত অস্থির হওয়ার কারণে আপনি অপ্রত্যাশিত ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন। অস্থিরতা থেকে কোনো সুরক্ষার ব্যবস্থা নির্ধারণ করা ছাড়া প্রচুর পরিমাণে ক্রিপ্টো ছেড়ে দেওয়া দায়িত্বশীল ট্রেডের কোনো পদ্ধতি নয়। একবার আপনি কোনো ট্রেডিং পরিকল্পনা নির্ধারণ করলে আপনি সহজেই স্টপ-লিমিট অর্ডার ব্যবহার করতে পারেন যাতে এটিতে লেগে থাকতে।

উদাহরণস্বরূপ, কল্পনা করুন যে আপনি $15,000 (US ডলার)-এ 1 বিটকয়েন (BTC) কিনেছেন এবং বিটকয়েনের বর্তমান মূল্য $40,000। আপনি নিশ্চিত করতে চান যে মূল্য যদি কমে যায় তাহলে আপনি $30,000-এর কমে বিক্রি করবেন না। এতে আপনার $15,000 লাভ হবে। এটি স্বয়ংক্রিয় করতে, আপনি একটি বিক্রয় স্টপ-লিমিট অর্ডার সেট করতে পারেন।

প্রথমে স্টপ মূল্য $32,000-এ সেট করুন। এই মূল্য যা আপনার লিমিট অর্ডার সক্রিয় হবে। তারপরে আপনি লিমিট মূল্য $30,000-এ সেট করুন, যার অর্থ স্টপ প্রাইসে পৌঁছে গেলে আপনার 1 BTC $30,000 বা তার চেয়ে ভালো মূল্যে বিক্রি হবে।

স্টপ প্রাইস এবং লিমিট মূল্যের মধ্যে একটি ফাঁক রেখে আপনার স্টপ-লিমিট অর্ডার পূরণ করার সর্বোত্তম সুযোগ রয়েছে। কোনো ফাঁক ছাড়া, আপনার অর্ডার পূরণ না করেই মার্কেট মূল্য আপনার লিমিট মূল্যের নিচে চলে যেতে পারে।

মনে রাখবেন যে, কোনো স্টপ-লিমিট অর্ডারের সর্বদাই পূরণ হওয়ার কোনো গ্যারান্টি নেই, তবে যখন হবে, তখন আপনি আপনার নির্ধারিত মূল্য বা তার চেয়েও ভালো মূল্য পাবেন। স্টপ-লিমিট অর্ডারগুলো কিভাবে ব্যবহার করবেন সে সম্পর্কে আরো তথ্যের জন্য স্টপ-লিমিট অর্ডার কী তা দেখুন?


আপনার নিজস্ব গবেষণা করুন

আমরা Binance অ্যাকাডেমি ও Binance রিসার্চের মাধ্যমে শিক্ষা ও গবেষণার উপকরণ প্রদান করলেও এটি শুধুমাত্র আপনার বিশ্লেষণের শুরু হওয়া উচিত। আপনার খুঁজে পাওয়া যেকোনো তথ্য আপনার নিজের গবেষণা (DYOR) করার জন্য যাচাই করুন ও দুবার চেক করুন।

এই পরামর্শটি এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে কয়েনে ট্রেড ও বাণিজ্য করা এবং বিকেন্দ্রীভূত অর্থ (DeFi) ব্যবহার উভয়ের জন্যই প্রযোজ্য। আপনার ঝুঁকির প্রোফাইল এবং আপনার পোর্টফোলিওর জন্য কোনটি উপযুক্ত তা শুধুমাত্র আপনিই ভালো জানেন। আপনি বিনিয়োগ ও ট্রেডিং শুরু করার আগে নিশ্চিত করুন যে আপনি আপনার অর্থ কোথায় রাখছেন সে সম্পর্কে আপনার ভালো ধারণা রয়েছে।


আপনার পোর্টফোলিওকে বৈচিত্র্যময় করুন

আপনি যদি কোনো ট্রেডিং পরিকল্পনা তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেন তাহলে আপনার ঝুঁকি কমাতে পোর্টফোলিও বৈচিত্র্য সেই পরিকল্পনার মধ্যে থাকা উচিত। আপনার পোর্টফোলিওতে মাত্র একটি বা দুটি অ্যাসেট রাখা ঝুঁকিপূর্ণ হতে থাকে। যেমন, আপনি একাধিক অ্যাসেট শ্রেণীর বিভিন্ন অ্যাসেটে বিনিয়োগ করে আপনার হোল্ডিংকে বৈচিত্র্য আনতে পারেন।

ক্রিপ্টোতে, আপনি আপনার অ্যাসেট বরাদ্দ নির্ধারণ করে শুরু করতে পারেন। আপনি DeFi তারল্য পুলস্ট্যাকিং, ডেরিভেটিভস, স্ট্যাবলকয়েনএবং অল্টকয়েনে আপনার বিনিয়োগ বরাদ্দ করতে পারেন। কোনো একক ক্রিপ্টো ক্লাসে আপনার এক্সপোজার কমালে আপনার বড় ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকবে। উদাহরণস্বরূপ, আপনার বিনিয়োগ করা কোনো লিকুইডিটি পুল থেকে আপনি সাময়িক লোকসানের সম্মুখীন হতে পারেন কিন্তু স্ট্যাকিং থেকে প্রাপ্ত লাভের মাধ্যমে আপনার ক্ষতি পূরণ করতে পারেন।

তারপরে আপনি এই বিভিন্ন অ্যাসেট শ্রেণীর মধ্যে বৈচিত্র্য আনতে পারেন। স্ট্যাবলকয়েনের ক্ষেত্রে, আপনার সামগ্রিক পোর্টফোলিও ঝুঁকি আরো কমাতে আপনি BUSDUSDT এবং PAXG হোল্ড করতে পারেন। কিন্তু এগুলো শুধু উদাহরণ। আপনার ক্রিপ্টো পোর্টফোলিও পরিকল্পনা করার একাধিক দায়িত্বশীল উপায় রয়েছে।


FOMO এড়িয়ে চলুন

মিস করার ভয় (FOMO) বহু ট্রেডারদের একটি প্রচলিত অনুভূতি। তবে, এটি আপনার ক্রিয়াকলাপকে কিভাবে প্রভাবিত করে তা সম্পর্কে আপনার সতর্ক থাকতে হবে। কোনো বিনিয়োগের সুযোগ হাতছাড়া হওয়ার ভয় আপনাকে আপনার সীমা ও ট্রেডিং পরিকল্পনা ত্যাগ করাতে পারে। আমরা এখন ইন্টারনেট, সোশ্যাল মিডিয়া এবং অন্যান্য যোগাযোগ চ্যানেলের মাধ্যমে অবিশ্বাস্য পরিমাণে তথ্যের অ্যাক্সেস পেয়েছি, যা আমাদের সকলকে সংবেদনশীল করে তুলেছে।

আপনি গবেষণা এবং অনলাইনে ভালো বিনিয়োগের সুযোগ খুঁজে পেলেও আপনার সবসময় শিলিং-এর দিকে খেয়াল রাখা উচিত। গোপন আর্থিক উদ্দেশ্য থাকা ব্যবহারকারীরা তাদের কয়েন বা প্রজেক্টের প্রচার করবে তাদের প্রকৃত মূল্য নির্বিশেষে। শিলাররা FOMO-এর সুবিধা নেবে এবং ট্রেডারদের আবেগকে কাজে লাগাবে। আপনি যদি মনে করতে শুরু করেন যে আপনি এমন একটি সুযোগ হারাচ্ছেন যা আপনি আগে কখনও শোনেননি, তাহলে আপনার অর্থ ঝুঁকি নেওয়ার আগে প্রকল্পটি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে গবেষণা করার জন্য কিছু সময় নিন।

অনেক কারণে FOMO হতে পারে। তাদের সম্পর্কে জানলে পাওনি এর ট্রিগারগুলো বুঝতে পারবেন।

  • সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম: টুইটার, টেলিগ্রাম, রেডিট এবং অন্যান্য সোশ্যাল প্ল্যাটফর্মে গুজব, মিথ্যা তথ্য এবং শিলার রয়েছে। আপনার সবসময় DYOR করতে হবে। অনেক ইনফ্লেন্সারকে প্রকল্প ও অল্টকয়েন প্রচার করার জন্য অর্থ দেয়া হয় এবং স্ক্যামাররা আপনার ফান্ড চুরি করতে আপনার FOMO-এর সুবিধা নিতে পারে।

  • লাভ: আপনি যদি উইনিং স্ট্রিকে থাকেন তাহলে আপনার করা লাভ নিয়ে বেপরোয়া হয়ে ওঠার প্রলোভন পেতে পারেন। আপনি আপনার দক্ষতার উপর অতিরিক্ত আত্মবিশ্বাসী হতে পারেন এবং খারাপ সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। এমনকি যদি ভালো পরিমাণ মুনাফা করেন তাহলে এটি অন্যান্য "বড়" বিনিয়োগের সুযোগগুলো নিয়ে আপনার FOMO বাড়াতে পারে।

  • লোকসান: লোকসান পূরণ করার জন্যেও আপনার FOMO বাড়তে পারে। আপনি এমনকি কোনো পজিশনে প্রবেশ করতে পারেন, লোকসান করার পরে বের হয়ে তারপর FOMO-এর কারণে সেই পজিশনে আবার প্রবেশ করতে পারেন। উভয়ই শেষ পর্যন্ত আরো বড় ক্ষতির কারণ হতে পারে।

  • কানাঘুষা ও গুজব: অন্য ট্রেডারদের কাছ থেকে বা ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য শুনে কোনো বিনিয়োগকে লোভনীয় মনে হতে পারে। তবে, গুজব, বিনিয়োগের পরামর্শ, বা জনপ্রিয় ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য সুপারিশগুলো কখনই কঠোর গবেষণা এবং বিশ্লেষণের বিকল্প হয়ে ওঠা উচিত নয়।

  • অস্থিরতা: উভয় দিকেই বড় মূল্যের ওঠানামা মুনাফা অর্জনের সুযোগ দেয়। আপনি বিনিয়োগ করছেন এবং আশা করছেন যে মূল্য বাড়বে বা মন্দার মধ্যে ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটকে শর্টিং করবে, এটি সহজেই আপনাকে নিয়ন্ত্রণহীন করে ফেলতে পারে। কোনো ঊর্ধ্বমুখী মার্কেটকে বিনিয়োগের একটি ভাল সুযোগ হিসেবে আপনি দেখতে পারেন কিন্তু শেষ পর্যন্ত দেখা যাবে একটি ফলিং নাইফ-এর অভিজ্ঞতা হয়েছে।


লিভারেজ বুঝুন

উচ্চ মুনাফার জন্য মার্জিন বা ফিউচারে ফান্ড ধার করার ধারণাটি আকর্ষণীয় শোনাতে পারে। তবে এর সাথে তরলীকরণ হয়ে যাওয়ার ও আপনার সকল মূলধন দ্রুত হারানোর ঝুঁকি থাকে, কারণ আপনার লোকসানও এখানে অনেক বেশি। তবে আপনি যদি আপনার সীমার মধ্যে থাকেন তাহলে তরলীকরণ খারাপই হবে এমন কোনো কথা নেই। তবে, আপনার পরিকল্পনার চেয়ে বেশি লোকসান বা অত্যধিক অর্থের ঝুঁকি নেওয়া দায়িত্বশীল ট্রেডিং নয়। আপনি লিভারেজ ব্যবহার শুরু করার আগে এটি কিভাবে কাজ করে তা আপনি ঠিক বুঝেছেন তা নিশ্চিত করুন।

আপনি হয়তো দেখেছেন যে লিভারেজ 10x-এর মত একটি মাল্টিপ্লায়ার হিসেবে প্রদর্শিত হয়েছে যা আপনার প্রাথমিক মূলধনকে 10 দ্বারা গুণ করে। $10,000-কে 10x-এর লিভারেজ ট্রেড করার জন্য আপনাকে $100,000 দেয় এবং আপনার প্রাথমিক মূলধন আপনার ক্ষতি পূরণ করতে ব্যবহৃত হয়। আপনার মূলধন ফুরিয়ে গেলে এক্সচেঞ্জ আপনার অবস্থানকে লিকুইডেট করবে।

লিভারেজ ট্রেডিং দায়িত্বহীনভাবে ব্যবহার করা যেতে পারে। এটির ঝুঁকি অনেক বেশি, তাই ঝুঁকিগুলো সম্পূর্ণরূপে বোঝার জন্য কয়েন-মার্জিনযুক্ত ফিউচার এবং USDT-মার্জিনযুক্ত ফিউচার সতর্কতার সাথে অধ্যয়ন করতে ভুলবেন না। দায়িত্বশীল ট্রেডিংকে উৎসাহিত করার জন্য Binance  লিভারেজ সীমিত করে নতুন ব্যবহারকারীদের রক্ষা করে।


কুলিং-অফ পিরিয়ড ব্যবহার করুন

ট্রেডারদেরকে দায়িত্বশীলতার সাথে লিভারেজ ব্যবহার করতে সাহায্য করার জন্য Binance ফিউচারের জন্য Binance-এর একটি ইনবিল্ট বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা আপনাকে আপনার ট্রেডের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে। আপনি আপনার ট্রেডিং পরিকল্পনায় লেগে থাকার জন্য কুলিং-অফ পিরিয়ডের ব্যবহার করতে পারেন এবং নিশ্চিত করতে পারেন যে আপনি শুধুমাত্র আপনার নিজের পদ্ধতিতেই ট্রেড করছেন। বৈশিষ্ট্যটি সক্রিয় করার মাধ্যমে আপনি এক মাস পর্যন্ত আপনার অ্যাকাউন্ট লক করতে পারেন। কুলিং-অফ পিরিয়ড চালু করলে টাইমার শেষ না হওয়া পর্যন্ত এটিকে রিভার্স করা যাবে না।

cta2


শেষ কথা

প্রত্যেকেরই দায়িত্বের সাথে ট্রেডিং করা উচিত এবং এক্সচেঞ্জও এর বাইরে নয়। Binance সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার জন্য ট্রেডারদের গাইড করতে সাহায্য করার ক্ষেত্রে তার ভূমিকাকে গুরুত্ব সহকারে নেয়। আপনি ডিজিটাল অ্যাসেট, স্টক বা পণ্য, যাই ট্রেড করুন না কেন, আপনার সর্বদা সঠিক ঝুঁকি নিয়ন্ত্রণের কৌশল প্রয়োগ এবং আপনার নিজস্ব গবেষণা করা উচিত। আপনি যদি আপনার ট্রেডিং ক্রিয়াকলাপ নিয়ে চিন্তিত হন, অতিরিক্ত চাপ অনুভব করেন বা আপনার সামর্থ্যের চেয়ে বেশি অর্থ হারান তাহলে Binance গ্রাহক সহায়তার সাথে যোগাযোগ করুন।