ইথিরিয়ামের টোকেনকৃত বিটকয়েনের ব্যাখ্যা
সুচিপত্র
ভূমিকা
টোকেনকৃত বিটকয়েন কী?
বিটকয়েনকে কেন ইথিরিয়ামে টোকেনকরণ করবেন?
বিটকয়েনের টোকেনকরণ কিভাবে কাজ করে?
টোকেনকৃত বিটকয়েনের উদাহরণ
এটি বিটকয়েন নাকি ইথিরিয়ামের জন্য ভালো?
শেষ কথা
ইথিরিয়ামের টোকেনকৃত বিটকয়েনের ব্যাখ্যা
হোম
নিবন্ধ
ইথিরিয়ামের টোকেনকৃত বিটকয়েনের ব্যাখ্যা

ইথিরিয়ামের টোকেনকৃত বিটকয়েনের ব্যাখ্যা

প্রকাশিত হয়েছে Aug 14, 2020আপডেট হয়েছে Oct 3, 2022
11m

পাঁচ বছরের শিশুর কাছে যেভাবে ব্যাখ্যা করবেন সেভাবে বলুন (ELI5)

টোকেনকৃত বিটকয়েন হল অন্য ব্লকচেইনে বিটকয়েন ব্যবহার করার একটি উপায়।

কিন্তু দাঁড়ান, বিটকয়েন তো ইতোমধ্যেই অসাধারণ, নয় কী? অবশ্যই তাই! এটির যথার্থ ব্যবহার ক্ষেত্র রয়েছে এবং এটি ইতোমধ্যেই সকলের জন্য উন্মুক্ত। একই সময়ে, পরিকল্পিতভাবে তৈরি করা সীমিত ফিচারের কারণে এটির আর কোনো উদ্ভাবনের জায়গাও সামান্য।

বিটকয়েন দিয়ে আমরা আর কী করতে পারি? কিছু কিছু বিটকয়েনার বলেন যে আমাদের বিশেষ কিছু করা উচিত নয়, এবং এটি যুক্তিসঙ্গতও বটে। তবে আবার, অন্য অনেকেই মনে করেন যে আমাদের অন্যান্য ব্লকচেইনে বিটকয়েন ব্যবহার করার উপায় খুঁজে বের করা উচিত। আর এখানেই ইথিরিয়ামের টোকেনকৃত BTC চলে আসে।

কেন বিটকয়েনের টোকেনকরণ? এটি কি অর্থপূর্ণ কোনো পদক্ষেপ? টোকেনকৃত বিটকয়েন কিভাবে তৈরি হয়? আপনি কি টোকেনকৃত BTC পেতে পারেন? আগ্রহী হলে নীচে আরো বিস্তারিত পড়ুন।


ভূমিকা

ক্রিপ্টোকারেন্সি স্পেসে বিটকয়েনকে সাধারণত “রিজার্ভ ভ্যালু” বা ভ্যালুর স্টোর হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ফলস্বরূপ, এটির অ্যাডোপশন সর্বোচ্চ, সেরা তারল্য, সর্বোচ্চ গড় ট্রেডিং পরিমাণ রয়েছে এবং মার্কেট মূলধনের দিক থেকে শীর্ষ ক্রিপ্টো হিসেবে রয়েছে। এমনকি কিছু লোক এটিও বিশ্বাস করে যে বিটকয়েন ছাড়া অন্য কোনো ক্রিপ্টোকারেন্সির প্রয়োজন নেই। তাদের যুক্তি হল এই যে অল্টকয়েন যা যা করার চেষ্টা করছে বিটকয়েন তার সবগুলো ব্যবহার ক্ষেত্র পূরণ করতে পারে।

তবে, ব্লকচেইন প্রযুক্তি বিভিন্ন সেগমেন্টে উন্নতি করছে। ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইন্যান্স (DeFi) আন্দোলনের লক্ষ্য হল ব্লকচেইনে আর্থিক অ্যাপ্লিকেশন নিয়ে আসা। এই বিকেন্দ্রীভূত অ্যাপ্লিকেশনগুলো (DApps) সকলের জন্য উন্মুক্ত, অনুমতিবিহীন নেটওয়ার্কে চলে এবং কেন্দ্রীয় সমন্বয়কারী টিমের প্রয়োজন ছাড়াই আস্থাবিহীন আর্থিক লেনদেনকে সক্ষম করে। DeFi-এর ধারণা ব্লকচেইন-নিরপেক্ষ (Blockchain-agnostic), অর্থাৎ এটি যেকোনো স্মার্ট কন্ট্রাক্ট প্ল্যাটফর্মে চলতে পারলেও, এই ক্রিয়াকলাপের অধিকাংশই ইথিরিয়ামে ঘটে। 

বিটকয়েন ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটের মেরুদণ্ড হলেও ইকোসিস্টেমের অন্যান্য অংশে ঘটে যাওয়া উন্নয়নের সুবিধা এটি নিতে পারে না। কিছু কিছু প্রজেক্ট এই সমস্যা সমাধানে কাজ করছে। 

বিটকয়েন নেটওয়ার্ক অক্ষত রেখে এটি যা যা করতে পারে তার চেয়ে বেশি ক্ষেত্রে কি বিটকয়েন ব্যবহার করার কোনো উপায় আছে? আসলে, ইথিরিয়ামে টোকেনকৃত বিটকয়েনের বৃদ্ধি ইঙ্গিত দেয় যে এটির চাহিদা রয়েছে।


টোকেনকৃত বিটকয়েন কী?

শুরু করার আগে, বিভ্রান্তি এড়াতে কিছু বিষয় আমরা পরিষ্কার করে নেই। আপনি যদি আমাদের বিটকয়েন কী? নিবন্ধ পড়ে থাকেন তাহলে আপনি জানেন যে একটি বড় হাতের b থাকা বিটকয়েন হল নেটওয়ার্ক আর ছোট হাতের b থাকা বিটকয়েন হল অ্যাকাউন্টের একক

বিটকয়েনকে টোকেনকরণ করার পিছনের ধারণাটি তুলনামূলকভাবে সহজ। আপনি কিছু প্রক্রিয়ার মাধ্যমে BTC-কে লক করবেন, অন্য নেটওয়ার্কে টোকেন মিন্ট করবেন এবং সেই নেটওয়ার্কে BTC-কে টোকেন হিসেবে ব্যবহার করবেন। অন্য নেটওয়ার্কের প্রতিটি টোকেন একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ বিটকয়েনের প্রতিনিধিত্ব করে। উভয়ের মধ্যে পেগ রাখতে হবে এবং প্রক্রিয়াটি বিপরীতে নেয়ার যোগ্য (Reversible) হতে হবে। অন্য কথায়, আপনি এই টোকেনগুলোকে ধ্বংস করতে পারেন যার ফলে বিটকয়েন ব্লকচেইনে "আসল" বিটকয়েনগুলো আবার আনলক হয়ে যায়।

ইথিরিয়াম এর ক্ষেত্রে এর মানে হল ERC-20 টোকেন যা বিটকয়েনের প্রতিনিধিত্ব করে। এটি ব্যবহারকারীদেরকে ইথিরিয়াম নেটওয়ার্কে বিটকয়েনে চিহ্নিত লেনদেন করার সুযোগ প্রদান করে। এটি বিটকয়েনকে প্রোগ্রামযোগ্যও করে তোলে – ইথিরিয়ামের অন্য যেকোনো টোকেনের মত।

আপনি ইথিরিয়াম-এ টোকেনকরণ করা বিটকয়েনের বর্তমান মোট যোগফল btconethereum.com-এ দেখতে পারেন।


জুলাই 2020 পর্যন্ত, ইথিরিয়ামে প্রায় 15,000 BTC টোকেনকরণ করা হয়েছে। এটি শুনতে অনেক মনে হলেও সঞ্চালিত সরবরাহ ~18.5 মিলিয়নের তুলনায় নগণ্য। তবে, এটি কেবল শুরু।

এটি লক্ষনীয় যে সাইডচেইনলেয়ার 2 সলিউশন যেমন Bitcoin লাইটনিং নেটওয়ার্ক বা লিকুইড নেটওয়ার্ক, এগুলোর লক্ষ্যও একই সমস্যার মোকাবেলা করা। মজার বিষয় হল, বিটকয়েন লাইটনিং নেটওয়ার্কের তুলনায় ইথিরিয়ামে দশগুণ বেশি বিটকয়েন রয়েছে। 

তবুও, এই বিভিন্ন সলিউশনগুলোর মধ্যকার প্রতিযোগিতা এত সোজা নয় – এটি জিরো-সাম গেম নয়। এমনকি অনেকেই মনে করেন যে তারা একে অপরের প্রতিদ্বন্দ্বী নয়, পরিপূরক। টোকেনকৃত প্রজেক্টগুলো বিটকয়েন হোল্ডারদের জন্য অপশন বৃদ্ধি করতে পারে আর টোকেনহীন প্রজেক্ট সামগ্রিক অবকাঠামো উন্নত করে। এর ফলে স্পেসের মধ্যে অধিক সমন্বয় হতে পারে, যা সমগ্র শিল্পকে উপকৃত করবে।

সুতরাং, এই সব শুনতে আকর্ষণীয় লাগছে কিন্তু এর মানে কী? আসুন জেনে নেই কেন আমরা বিটকয়েনকে টোকেনকৃত করতে চাই।


বিটকয়েনকে কেন ইথিরিয়ামে টোকেনকরণ করবেন?

বিটকয়েনের ডিজাইন পরিকল্পিতভাবেই সরল। এটি কয়েকটি মাত্র জিনিস করার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে এবং সেগুলো এটি খুব ভাল করেই সম্পাদন করে। তবে, এই বৈশিষ্ট্যগুলোর অন্তর্নিহিত সীমাবদ্ধতা রয়েছে।

ভ্যালুর সর্বাধিক পরিমাণ বিটকয়েনে থাকলেও এটি ডিজিটাল মুদ্রা শিল্পের অন্যান্য সেগমেন্টে ঘটে যাওয়া উদ্ভাবন থেকে ততটা উপকৃত হতে পারে না। আপনি টেকনিক্যালি বিটকয়েনে স্মার্ট কন্ট্রাক্ট রান করতে পারলেও, ইথিরিয়াম বা অন্যান্য স্মার্ট কন্ট্রাক্ট প্ল্যাটফর্মের তুলনায় এটির স্কোপ বেশ সীমিত। 

অন্যান্য চেইনে বিটকয়েন টোকেনকরণ করলে নেটওয়ার্কের উপযোগিতা বাড়াতে পারে। কিভাবে? আসলে, এটি এমন ফাংশনালিটি সক্রিয় করতে পারে যা বিটকয়েনে স্থানীয়ভাবে সমর্থিত নয়। পাশাপাশি এটি বিটকয়েনের মূল ফাংশনালিটি ও নিরাপত্তা মডেল অক্ষত থাকে। অতিরিক্ত সুবিধাগুলো লেনদেনের গতি, ফাঞ্জিবিলিটি ও প্রাইভেসি বৃদ্ধি করতে পারে।

শক্তিশালী আরেকটি কারণ আছে। DeFi-এর সেরা দিকগুলোর মধ্যে একটি হল কম্পোজেবিলিটির ধারণা। এর অর্থ হল যেহেতু এই সকল অ্যাপ্লিকেশনগুলো একই পাবলিক, ওপেন-সোর্স, অনুমতিবিহীন বেস লেয়ারে চলছে, তাই তারা একে অপরের সাথে নির্বিঘ্নে কাজ করতে পারে। 

ফাইন্যান্সিয়াল বিল্ডিং ব্লকের এই কম্পোজেবল লেয়ারে বিটকয়েন আনাকে অনেকের কাছে একটি উত্তেজনাপূর্ণ সম্ভাবনা বলে মনে করা হয়। এটি অনেক নতুন ধরনের অ্যাপ্লিকেশনের সম্ভাবনা তৈরি করতে পারে যা বিটকয়েন ব্যবহার করে এবং যা অন্যথায় সম্ভব হবে না।


বিটকয়েনের টোকেনকরণ কিভাবে কাজ করে?

ইথিরিয়াম ও অন্যান্য ব্লকচেইনে বিটকয়েনকে টোকেনকরণ করার অনেক উপায় রয়েছে। তাদের সকলেরই বিভিন্ন মাত্রার বিকেন্দ্রীকরণের রয়েছে, আস্থা ও ঝুঁকি সম্পর্কে বিভিন্ন ধারণা রয়েছে এবং এগুলো বিভিন্নভাবে পেগ মেইন্টেইন করতে পারে।

প্রধান দুটি ধরণকে কাস্টোডিয়াল ও নন-কাস্টোডিয়াল হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা যেতে পারে। প্রথম ধরণে রয়েছে একটি কেন্দ্রীভূত কাস্টোডিয়ান এবং টোকেনগুলো সেই পক্ষ দ্বারা মিন্ট করা হতে পারে। এটি কাউন্টারপার্টি ঝুঁকির সম্ভাবনাকে সামনে নিয়ে আসে কারণ বিটকয়েনকে কাস্টোডি দেয়া প্রতিষ্ঠানকে আস্থাবান হতে হবে (এবং এটিকে ব্যবসায় কার্যকর থাকতে হবে)। অন্যদিকে, এই বাস্তবায়নটি অন্যান্য বিকল্পগুলোর চেয়ে বেশি নিরাপদ বলে বিবেচিত হতে পারে।

অন্যান্য সমাধানগুলো কিছুটা ভিন্ন। স্বয়ংক্রিয় অন-চেইন প্রক্রিয়াগুলো পুরো মিন্টিং ও বার্নিং প্রক্রিয়াটি সম্পাদন করায় কোনো বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজন নেই। জামানত অ্যাসেট লক করা হয় এবং টোকেনগুলো কিছু অন-চেইন কৌশলের মাধ্যমে অন্য চেইনে মিন্ট করা হয়। টোকেনগুলো ধ্বংস হয়ে গেলে আবার আনলক না হওয়া পর্যন্ত ফান্ড অন-চেইনে লক করা থাকে। কাউন্টারপার্টির ঝুঁকি দূর করলেও এটি নিরাপত্তাজনিত সম্ভাব্য ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। কেন? আসলে, এই ক্ষেত্রে, ঝুঁকির বোঝা সম্পূর্ণরূপে ব্যবহারকারীর কাঁধে থাকে। কোনো ব্যবহারকারী বা কন্ট্রাক্ট ত্রুটি ঘটে ফান্ডের ক্ষতি হলে সেগুলো চিরতরে হারিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।


টোকেনকৃত বিটকয়েনের উদাহরণ

কাস্টোডিয়াল

বর্তমানে টোকেনকৃত বিটকয়েন সরবরাহের একটি উল্লেখযোগ্য অংশই এগুলো। সবচেয়ে বেশি ভ্যালু লক করা আছে র‍্যাপড বিটকয়েনে (WBTC)। এটি কিভাবে কাজ করে? ব্যবহারকারীরা তাদের বিটকয়েন একটি কেন্দ্রীভূত কাস্টোডিয়ানের কাছে পাঠায় যেটি সেগুলোকে একটি মাল্টি-সিগনেচার কোল্ড স্টোরেজ ওয়ালেটে রাখে এবং বিনিময়ে WBTC টোকেন মিন্ট করে। এটা লক্ষণীয় যে এই প্রক্রিয়ার জন্য KYC/AML প্রবিধান মেনে চলতে তাদের পরিচয় প্রমাণ করতে হবে। এই পদ্ধতির জন্য টোকেন মিন্টকারী প্রতিষ্ঠানের উপরে আস্থার প্রয়োজন হয় কিন্তু এটি এর পাশাপাশি কিছু নিরাপত্তা সুবিধাও নিয়ে আসে।

Binance এর BTC-এর একটি টোকেনকৃত সংস্করণও রয়েছে BTCB নামে। এটি Binance চেইনে ইস্যু করা একটি BEP-2 টোকেন। আপনি যদি এটি ব্যবহার করে দেখতে চান তাহলে এটিকে Binance DEX-এ ট্রেড করতে পারেন।


নন-কাস্টোডিয়াল

নন-কাস্টোডিয়াল সলিউশন কোনো কেন্দ্রীভূত কাস্টোডিয়ানের কোনো রকম সম্পৃক্ততা ছাড়াই সম্পূর্ণরূপে অন-চেইনে কাজ করে। সহজ কথায়, আপনি এগুলোকে র‍্যাপড BTC-এর মত ভাবতে পারেন। তবে, কোনো কেন্দ্রীভূত কাস্টোডিয়ানের পরিবর্তে, এটি একটি স্মার্ট কন্ট্রাক্ট বা ভার্চুয়াল মেশিন যা ফান্ডকে সুরক্ষিত রাখে ও টোকেন মিন্ট করে। ব্যবহারকারীরা তাদের BTC জমা দিতে পারে ও তাদের টোকেনকৃত বিটকয়েন কোনো আস্থাবিহীন ও অনুমতিবিহীন পদ্ধতিতে মিন্ট করতে পারে।

এই সিস্টেমগুলোর মধ্যে কোনো কোনোটির জন্য  ওভার-কোলেটারালাইজেশনও  প্রয়োজন হবে, যার অর্থ যতটা মিন্ট করতে চায় ব্যবহারকারীদেরকে তার চেয়ে বেশি ভ্যালু (জামানত) জমা করতে হবে। তারা অপ্রত্যাশিত ঘটনামার্কেটের বড় ধরণের পতনের জন্য সিস্টেমকে প্রস্তুত করতে এটি করে। তবুও, জামানত এর ভ্যালু যদি উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পায় তাহলে এই সিস্টেমগুলো এটি পরিচালনা করতে সক্ষম নাও হতে পারে।

সবচেয়ে জনপ্রিয় নন-কাস্টোডিয়াল বাস্তবায়ন হল renBTC। বিটকয়েনকে Ren Virtual Machine (RenVM)-এ পাঠানো হয়, যা বিকেন্দ্রীভূত নোডগুলোর একটি নেটওয়ার্ক ব্যবহার করে সেগুলোকে সংরক্ষণ করে। এটি তখন পাঠানো বিটকয়েনের পরিমাণ অনুযায়ী ERC-20 টোকেন মিন্ট করে। 

উল্লেখযোগ্য অন্যান্য উদাহরণ হল sBTC ও iBTC, যা বিটকয়েনের পরিবর্তে সিনথেটিক্স নেটওয়ার্ক টোকেন (SNX) দিয়ে জামানতকৃত সিন্থেটিক টোকেন। iBTC-কে যা বিশেষভাবে আকর্ষণীয় করে তোলে তা হল এটি বিপরীতভাবে (Inversely) বিটকয়েনের মূল্য ট্র্যাক করে। এই বৈশিষ্টটি এটিকে বিটকয়েন শর্ট করার সামান্য কয়েকটি নন-কাস্টোডিয়াল উপায়গুলোর মধ্যে একটিতে পরিণত করে।

এটি মনে রাখা প্রয়োজন যে এগুলো সম্পূর্ণরূপেই পরীক্ষামূলক প্রযুক্তি। এটি কোনো আশ্চর্যের বিষয় নয় যে কেন্দ্রীভূত, কাস্টোডিয়াল সলিউশনগুলো অধিক জনপ্রিয় – এগুলো আরো বেশি নিরাপদ হয়ে থাকে। স্বাভাবিকভাবেই, বাগ ও ব্যবহারকারী ত্রুটির একটি বিশাল ঝুঁকি রয়েছে যা সম্ভাব্য ফান্ড লোকসানের কারণ হতে পারে। তা সত্ত্বেও, প্রযুক্তিটির উন্নতি হলে এগুলো শেষ পর্যন্ত টোকেনকরণের ভবিষ্যৎ হতে পারে।

এই নন-কাস্টোডিয়াল সলিউশনগুলো স্বয়ংক্রিয় প্রক্রিয়া দ্বারা নিয়ন্ত্রিত হওয়ায় সেগুলো শুধুমাত্র অ্যাডভান্সড ব্যবহারকারীদের দ্বারা ব্যবহার করার জন্য সুপারিশ করা হয়। কিন্তু, আপনি এই টোকেনের মিন্টিং প্রক্রিয়ার বিষয়ে চিন্তা না করে ব্যবহার করতে চাইলে, আপনি ক্রিপ্টোকারেন্সি এক্সচেঞ্জে সেগুলো কিনতে ও ট্রেড করতে পারেন।


ক্রিপ্টোকারেন্সিতে শুরু করতে চাইছেন? Binance-এ বিটকয়েন ক্রয় করুন!


এটি বিটকয়েন নাকি ইথিরিয়ামের জন্য ভালো?

এই প্রশ্নের উত্তর সহজ নয়। আসুন যুক্তির উভয় পক্ষ বিবেচনা করার চেষ্টা করে দেখি।

এটি বিটকয়েন এর জন্য কিভাবে ভালো হতে পারে? এটির বিটকয়েনের উপযোগিতা বাড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে। বিটকয়েনের আর বেশি কোনো ফাংশনালিটির প্রয়োজন নেই বলে অনেকের যুক্তি দেইয়ার সম্ভাবনা থাকলেও হয়তো আরো কিছু ফাংশনালিটি হলে ভালো হত। যেমনটি আমরা আগে আলোচনা করেছি, সুবিধাগুলোর মধ্যে রয়েছে লেনদেনের বর্ধিত গতি, ফাঞ্জিবিলিটি, প্রাইভেসি ও লেনদেনের হ্রাসকৃত খরচ। ETH 2.0 চালু হওয়াও আমরা ইথিরিয়াম-এ লেনদেন দ্রুত এবং সস্তা হবে বলে আশা করতে পারি। এটি ইথিরিয়ামে টোকেনকৃত বিটকয়েনের ক্ষেত্রেও সাহায্য করতে পারে। 

অন্যদিকে, কেউ কেউ যুক্তি দেন যে টোকেনকৃত বিটকয়েন হোল্ডারদের জন্য এটি সম্ভাব্য বিপজ্জনক। BTC টোকেনকরণ মানে বিটকয়েনের শক্তিশালী নিরাপত্তা সুবিধা ত্যাগ করাও – যেগুলো এটির সর্বাধিক চাহিদা থাকা বৈশিষ্ট্য। 

উদাহরণস্বরূপ, কোনো বাগের কারণে টোকেনকৃত বিটকয়েন চুরি হয়ে গেলে বা স্মার্ট কন্ট্রাক্ট হারিয়ে গেলে কী হবে? বিটকয়েন ব্লকচেইনে লক করা বিটকয়েনগুলোকে আনলক করার সম্ভাব্য আর কোনো উপায় থাকবে না।

বিবেচনা করার আরেকটি বিষয় হল ফি। কেউ কেউ যুক্তি দেন যে যদি বিপুল সংখ্যক ব্যবহারকারী ইথিরিয়াম ব্লকচেইনে টোকেনকৃত BTC লেনদেন করা শুরু করেন, তাহলে বিটকয়েন নেটওয়ার্কে লেনদেনের ফি কমে যেতে পারে। দীর্ঘমেয়াদে (খুব), বিটকয়েন শুধুমাত্র লেনদেন ফি দ্বারা সমর্থিত হবার কথা। এগুলোর অধিকাংশই যদি ইথিরিয়াম ইকোসিস্টেমে প্রবাহিত হয় তাহলে নেটওয়ার্কের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে। তবে, এটির সম্ভাবনা কম এবং সামনে আরো দীর্ঘ সময়ের জন্য এটি খুব গুরুতর কিছু নয়।

ইথিরিয়ামের জন্য এটি কিভাবে ভালো হতে পারে? ইথিরিয়াম যদি বিটকয়েনের অনেক ভ্যালু ধারণ করতে পারে তাহলে ভ্যালু ট্রান্সফারের জন্য এটি একটি বিশ্বব্যাপী নেটওয়ার্ক হিসেবে ইথিরিয়ামের উপযোগিতা বাড়াতে পারে। ইথারস্ক্যানের গবেষণা অনুযায়ী, পূর্বে উল্লিখিত 15,000 BTC অংকের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ ইথিরিয়াম DeFi ইকোসিস্টেমে লক করা আছে। 

টোকেনকৃত বিটকয়েন ইথিরিয়ামে DeFi-এর ইউটিলিটি ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি করতে পারে। কিভাবে? টোকেনকৃত বিটকয়েনের উপর ভিত্তি করে বিকেন্দ্রীকৃত আর্থিক পরিষেবা থাকতে পারে। BTC-ভিত্তিক DEX, ধার দেয়ার মার্কেটপ্লেস, লিকুইডিটি পুল এবং DeFi-তে অন্য যা কিছু আছে সবই BTC-তে প্রকাশ করা যেতে পারে। টোকেনকৃত বিটকয়েনের সাফল্য অন্যান্য ধরনের অ্যাসেটকেও ইথিরিয়াম নেটওয়ার্কে মাইগ্রেট করতে উৎসাহিত করতে পারে।

অধিকাংশ প্রজেক্ট এখনও খুব প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে এবং এগুলোর পিছনে থাকা প্রযুক্তির উন্নতি করার অনেক সুযোগ রয়েছে। তবুও, এই খাতে অবশ্যই আরো চমৎকার অগ্রগতি আসবে।


শেষ কথা

আমরা টোকেনকৃত বিটকয়েন কী ও এর ভিন্ন ভিন্ন বাস্তবায়ন নিয়ে আলোচনা করেছি । একটি ERC-20 টোকেন হিসেবে বিটকয়েনকে টোকেনকৃত করার পিছনে মূল চালক হল বিটকয়েনের উপযোগিতা বৃদ্ধি করা। 

বিটকয়েন লেনদেনের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ ইথিরিয়াম ধারণ করতে পারলে ভবিষ্যতের এটির বিশাল প্রভাব থাকতে পারে। ফ্লিপিং কি বাস্তবসম্মত? বিটকয়েন সরবরাহের কতটুকু অংশ ভবিষ্যতে ইথিরিয়ামে লেনদেন করা হবে? এটির উত্তর ভবিষ্যতেই ভালো পাওয়া যাবে। তবে, দুটি বৃহত্তম ক্রিপ্টোকারেন্সি নেটওয়ার্কের মধ্যে সেতু নির্মাণের মাধ্যমে পুরো ব্লকচেইন শিল্প উপকৃত হতে পারে।