Metaverse


মেটাভার্স হলো স্থায়ী, অনলাইন, 3D ভার্চুয়াল পরিবেশের একতি ধারণা যেটিকে অনেকেই ভবিষ্যতের ডিজিটাল অভিজ্ঞতার মূল উপাদান হবে বলে বিশ্বাস করেন। এটিকে "দ্য ইন্টারনেট অব এক্সপেরিয়েন্স" এবং "3D ইন্টারনেট" বলা হয়েছে। এটি ইন্টারনেটের একটি ভবিষ্যৎ ইন্টারেশন হবে বলে বিশ্বাস করা হয়, যেখানে ব্যবহারকারীরা ভার্চুয়ালভাবে কাজ করবে, দেখা করবে, খেলা করবে ও সামাজিকীকরণ করবে এবং যেটি Web3 ধারণার সাথে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত।
শব্দটি 1992 সালে নিল স্টিফেনসনের বিজ্ঞান-কল্পকাহিনী উপন্যাস স্নো ক্র্যাশ থেকে উদ্ভূত হয়েছিল, যা ভৌত বাস্তবতার পাশাপাশি বিদ্যমান একটি ভার্চুয়াল মহাবিশ্বকে বর্ণনা করে। উপন্যাসের মেটাভার্সে ভার্চুয়াল রিয়েলিটি, অগমেন্টেড রিয়েলিটি এবং মিক্সড রিয়েলিটির উপাদান রয়েছে। সেই কাল্পনিক মেটাভার্সের অস্তিত্ব আজ সম্পূর্ণরূপে না থাকলেও সেই প্রযুক্তিগুলো পরিপক্ক হচ্ছে। অনেক প্রযুক্তি কোম্পানি ভার্চুয়াল জগতের ভিন্ন ভিন্ন সংস্করণ নিয়ে কাজ করছে যেটিকে কেউ কেউ বলে মেটাভার্স, আবার অন্যরা এই শব্দটি ব্যবহার করতে অনিচ্ছুক। কেউ কেউ যুক্তি দেন যে ভিডিও গেম মেটাভার্সের সবচেয়ে সফল অগ্রগামী সংস্করণ।
ব্লকচেইন প্রযুক্তি মেটাভার্সের জন্য দুর্দান্ত হতে পারে, যদিও মেটাভার্সের কাজ করার জন্য এটি কোনো শর্ত নয়। ব্লকচেইন প্রযুক্তি ডিজিটাল অর্থনীতিকে তাদের নিজস্ব মুদ্রা, ইউটিলিটি টোকেন এবং ভার্চুয়াল কালেক্টিবল (NFT) দিয়ে কাজ করার সুযোগ দেয় যা ব্যবহারকারীদের মালিকানাধীন হতে পারে এবং সহজেই বিনিময় করা যায়, এমনকি বিভিন্ন মেটাভার্স জুড়েও। মেটাভার্স ব্যবহারকারীদেরকে তাদের ভার্চুয়াল পণ্যের উপর অধিক নিয়ন্ত্রণ দিতে ক্রিপ্টো ওয়ালেট ব্যবহার করেও উপকৃত হবে। অধিকন্তু, ব্লকচেইন প্রযুক্তি ভবিষ্যতের মেটাভার্সের জন্য স্বচ্ছ এবং নির্ভরযোগ্য গভার্নেন্স ব্যবস্থা প্রদান করতে পারে।