তারল্যের ব্যাখ্যা
সুচিপত্র
ভূমিকা
তারল্য কী?
অ্যাকাউন্টিং লিকুইডিটি কী?
বাজারের তারল্য কী?
বিড-আস্ক স্প্রেড
তারল্য গুরুত্বপূর্ণ কেনো?
শেষ কথা
হোম
নিবন্ধ
তারল্যের ব্যাখ্যা

তারল্যের ব্যাখ্যা

প্রকাশিত হয়েছে Dec 6, 2018আপডেট হয়েছে Nov 14, 2022
6m

TL;DR

কোনো অ্যাসেটকে আপনি কত সহজে নগদ অর্থ বা অন্য অ্যাসেটে রূপান্তর করতে পারেন তার পরিমাপ হলো তারল্য। আপনার ব্যাকপ্যাকে হয়তো সবচেয়ে বিরল, সবচেয়ে মূল্যবান পুরানো বই থাকতে পারে, কিন্তু আপনি যদি কোনো নির্জন দ্বীপে একা থাকেন, তাহলে ক্রেতা খুঁজে পাওয়া কঠিন হবে।

অন্যদিকে, আপনি যদি Binance-এ BTC/USDT জোড়ায় $100 USD-এর BTC কিনতে চান, তাহলে আপনি দামের উপর কোনো প্রভাব ছাড়াই প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই তা করতে পারবেন। এই কারণেই আর্থিক সম্পদের ক্ষেত্রে তারল্য গুরুত্বপূর্ণ।


ভূমিকা

কোনো বাজারের অবস্থা নির্ণয় করার ভালো উপায় কী? আপনি  ট্রেডিংয়ের পরিমাণঅস্থিরতা, বা অন্যান্য টেকনিক্যাল সূচক দেখতে পারেন। তবে, একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক রয়েছে – তারল্য। যদি কোনো বাজার তরল হয়, তবে দামের উপর উল্লেখযোগ্য প্রভাব না ফেলে ট্রেড সম্পাদন করা বেশ কঠিন হতে পারে। তারল্য কী এবং এটি এতো গুরুত্বপূর্ণ কেনো চলুন তা নিয়ে আলোচনা করা যাক।


তারল্য কী?

তারল্য হলো সহজতার একটি পরিমাপ, যার মাধ্যমে একটি অ্যাসেটের মূল্যকে প্রভাবিত না করেই অন্য অ্যাসেটে রূপান্তর করা যায়। সহজ ভাষায়, কত দ্রুত ও সহজে কোনো অ্যাসেট ক্রয় বা বিক্রয় করা যায় তা তারল্যের মাধ্যমে বর্ণনা করা হয়।

এই অর্থে, ভালো তারল্য মানে হলো একটি অ্যাসেটকে তার দামের উপর খুব বেশি প্রভাব না ফেলেই দ্রুত ও সহজেই ক্রয় বা বিক্রয় করা যেতে পারে। বিপরীতভাবে, খারাপ বা কম তারল্য মানে সেই অ্যাসেটকে দ্রুত ক্রয় বা বিক্রয় করা যাবে না। অথবা, যদি এটি করতে পারে, এর দামের উপর লেনদেনটি একটি উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলবে।

নগদ অর্থ (বা নগদ অর্থের সমতুল্য) সবচেয়ে তরল অ্যাসেট হিসেবে বিবেচিত হতে পারে, কারণ এটি সহজেই অন্য অ্যাসেটে রূপান্তরিত হতে পারে। ক্রিপ্টোকারেন্সির জগতে অনুরূপ একটি অ্যাসেট হলো  স্ট্যাবলকয়েন

যদিও স্ট্যাবলকয়েন এবং ডিজিটাল মুদ্রাগুলো এখনও দৈনন্দিন পেমেন্টের আদর্শ কোনো অংশ নয়, তবে এটি ব্যাপকভাবে গৃহীত হওয়ার বিষয়টি কেবলমাত্র সময়ের ব্যাপার। যাই হোক না কেনো, ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটের বেশিরভাগ পরিমাণই ইতোমধ্যে স্ট্যাবলকয়েনে সম্পন্ন হয়েছে, যা সেগুলোকে খুব তরল করে তুলেছে।

অন্যদিকে, রিয়েল এস্টেট, বাইরের গাড়ি বা বিরল আইটেমগুলো তুলনামূলকভাবে তরল হিসেবে বিবেচিত হতে পারে, কারণ সেগুলো ক্রয় বা বিক্রয় করা খুব একটা সহজ কাজ নয়। আপনার কাছে একটি বিরল নিদর্শন থাকতে পারে, কিন্তু আপনার দৃষ্টিতে ন্যায্য বাজার মূল্য বলে মনে হতে পারে এমন মূল্যে একজন ইচ্ছুক ক্রেতা খুঁজে পাওয়া কঠিন হতে পারে।

এছাড়াও, ধরুন আপনি আপনার শিল্পকর্ম দিয়ে একটি গাড়ি কিনতে চান। আপনি যে গাড়িটি চান ঠিক সেই গাড়িটি বিক্রি করবেন এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া প্রায় অসম্ভব হবে, যিনি এটি আপনার শিল্পকর্মের সাথে বিনিময় করতে ইচ্ছুক। এই ক্ষেত্রেই নগদ অর্থের বিষয়টি জরুরি।

স্থাবর সম্পদগুলো সাধারণত ডিজিটাল অ্যাসেটের তুলনায় কম তরল হয় কারণ সেগুলো… আসলে, স্থাবর প্রকৃতির। এতে অতিরিক্ত খরচের প্রয়োজন হয় এবং লেনদেন সম্পন্ন হতে কিছুটা সময় লাগতে পারে।

তবে, ডিজিটাল এক্সচেঞ্জ ও ক্রিপ্টোকারেন্সির প্রেক্ষাপটে, অ্যাসেট ক্রয় বা বিক্রয় করা কম্পিউটারের একটি খেলার মতো। এটি তারল্যের উপর কিছু সুবিধা প্রদান করে, যেহেতু কোনো লেনদেন সম্পন্ন করা তুলনামূলকভাবে সহজ।

এটি বলার পাশাপাশি, একটি ধারা হিসেবে তারল্য সম্পর্কে চিন্তা করা ভালো হতে পারে। এক প্রান্তে, আমাদের নগদ অর্থ এবং স্ট্যাবলকয়েন রয়েছে। অন্য প্রান্তে, আমাদের কাছে বিরল আইটেমের মতো খুবই তরল অ্যাসেট রয়েছে। এই তারল্যের ধারার একটি নির্দিষ্ট অংশে থাকা অ্যাসেটগুলো সম্পর্কে চিন্তা করা ভালো।

প্রচলিত অর্থে, দুটি ধরনের তারল্য রয়েছে – অ্যাকাউন্টিং সম্পর্কিত তারল্য এবং বাজারের তারল্য।


অ্যাকাউন্টিং লিকুইডিটি কী?

অ্যাকাউন্টিং লিকুইডিটি এমন একটি পরিভাষা, যা বেশিরভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং সেগুলোর ব্যালেন্স শীটের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়। এটি বোঝায় যে, কত সহজে একটি কোম্পানি তার বর্তমান অ্যাসেট ও নগদ অর্থের প্রবাহ ব্যবহার করে তার স্বল্পমেয়াদী ঋণ এবং চলমান দায় পরিশোধ করতে পারে। যেমন, অ্যাকাউন্টিং লিকুইডিটি সরাসরি একটি কোম্পানির আর্থিক অবস্থার সাথে সংশ্লিষ্ট।


বাজারের তারল্য কী?

বাজারের তারল্য হলো সেই পরিমাণ যা একটি বাজার ন্যায্য মূল্যে অ্যাসেট ক্রয় এবং বিক্রয় করার সুযোগ দেয়। এগুলো হলো সেই দাম যা অ্যাসেটের অন্তর্নিহিত মূল্যের সবচেয়ে কাছাকাছি। এই ক্ষেত্রে, অন্তর্নিহিত মূল্যের অর্থ হলো, একজন বিক্রেতা সর্বনিম্ন যে মূল্যে (আস্ক) বিক্রয় করতে ইচ্ছুক এবং একজন ক্রেতা যে সর্বোচ্চ মূল্যে (বিড) তা ক্রয় করতে ইচ্ছুক সেই মূল্য দুটি কাছাকাছি থাকে। এই দুটি মূল্যের মধ্যে পার্থক্যকে বিড-আস্ক স্প্রেড বলা হয়।


বিড-আস্ক স্প্রেড

বিড-আস্ক-স্প্রেড

বিড-আস্ক স্প্রেড 0.2% সহ BNB/USDC-এর একটি ডেপথ চার্ট


 বিড-আস্ক স্প্রেড  হলো সর্বনিম্ন চাহিত বিক্রয়মূল্য এবং সর্বোচ্চ চাহিত ক্রয়মূল্যের মধ্যে পার্থক্য। আপনি হয়তো কল্পনা করতে পারেন, তরল বাজারের জন্য বিড-আস্ক স্প্রেড কম হওয়া বাঞ্ছনীয়। এর মানে হলো, বাজারে ভাল তারল্য রয়েছে, কারণ দামের অসঙ্গতিগুলো ক্রমাগতভাবে ট্রেডারদের মাধ্যমে ভারসাম্যপূর্ণ অবস্থায় ফিরিয়ে আনা হয়। অন্যদিকে, বিড-আস্ক স্প্রেড বড় হওয়ার মানে হলো, একটি বাজার তরল এবং ক্রেতারা কোন মূল্যে ক্রয় করতে চান এবং বিক্রেতারা কোন মূল্যে বিক্রয় করতে চান তার মধ্যে একটি বড় পার্থক্য রয়েছে।

তথাকথিত আর্বিট্রেজ ট্রেডারদের জন্যও বিড-আস্ক স্প্রেড উপযোগী হতে পারে। তারা বারবার বিড-আস্ক স্প্রেডে থাকা অল্প পার্থক্যকে কাজে লাগানোর সুযোগ খোঁজে। আর্বিট্রেজ ট্রেডারগণ মুনাফা করলেও তাদের কার্যকলাপ বাজারের জন্যও উপকারী হয়। কিভাবে? যেহেতু তারা বিড-আস্ক স্প্রেড কমিয়ে দেয়, তাই অন্য ট্রেডারগণও ভালোভাবে ট্রেড সম্পন্ন করতে পারেন।

ভিন্ন ভিন্ন এক্সচেঞ্জে একই বাজার জোড়ার মধ্যে দামের পার্থক্য যেন খুব বেশি না হয় তাও আর্বিট্রেজ ট্রেডারগণ নিশ্চিত করেন। আপনি কি কখনও লক্ষ্য করেছেন যে সবচেয়ে বড়, সর্বাধিক তরল এক্সচেঞ্জগুলোতে কিভাবে BTC-এর মূল্য প্রায় একই রকম থাকে? এজন্য মূলত আর্বিট্রেজ ট্রেডারগণকে ধন্যবাদ জানাতে হয়, যারা ভিন্ন ভিন্ন এক্সচেঞ্জে মূল্যের মধ্যকার স্বল্প পার্থক্য খুঁজে নিয়ে সেখান থেকে মুনাফা করেন।


তারল্য গুরুত্বপূর্ণ কেনো?

তাহলে, যেহেতু ক্রিপ্টোকারেন্সিগুলো ডিজিটাল অ্যাসেট, সেগুলো বেশ তরল হওয়া উচিত, তাই না? ঠিক আছে, তবে পুরোপুরি নয়। কিছু কিছু ক্রিপ্টো অ্যাসেটের তারল্য অন্যগুলোর তুলনায় বেশি। এটি ট্রেডিংয়ের বেশি পরিমাণ এবং বাজার দক্ষতার একটি উপজাত। 

কিছু কিছু মার্কেটে প্রতিদিন মাত্র কয়েক হাজার ডলার মূল্যের ট্রেড হতে পারে, অন্যদিকে, কিছু মার্কেটে কয়েক বিলিয়ন ডলার হতে পারে।  বিটকয়েন বা  ইথেরিয়ামের মতো ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য তারল্য কোনো সমস্যা নয়, তবে এমন অনেক কয়েন বাজারে আছে, যেগুলোর তারল্য উল্লেখযোগ্যভাবে অনেক কম।

যখন  অল্টকয়েন ট্রেডিংয়ের বিষয় আসে, তখন এটি বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি কোনো তরল কয়েনে একটি পজিশন তৈরি করেন, তাহলে আপনি হয়তো আপনার পছন্দসই মূল্যে সেখান থেকে বের হতে পারবেন না – যার অর্থ আপনাকে  ব্যাগটি ধরে রাখতে হবে। এই কারণেই সাধারণত উচ্চতর তারল্য রয়েছে এমন অ্যাসেট নিয়ে ট্রেড করা ভালো। 

যদি আপনি কোনো তরল বাজারে একটি বড় অর্ডার কার্যকর করার চেষ্টা করেন তাহলে কী হবে? স্লিপেজ। এটি আপনার কাঙ্ক্ষিত মূল্য এবং যেখানে আপনার ট্রেডটি সম্পাদিত হয় তার মধ্যকার পার্থক্য। উচ্চ স্লিপেজ মানে হলো আপনার ট্রেডটি আপনার কাঙ্ক্ষিত মূল্য থেকে খুবই ভিন্ন একটি মূল্যে সম্পাদিত হয়। এটি সাধারণত তখনই ঘটে যখন আপনার কাঙ্ক্ষিত মূল্যে অর্ডারটি কার্যকর হওয়ার জন্য তার কাছাকাছি  অর্ডার বুকে পর্যাপ্ত অর্ডার থাকে না। আপনি শুধুমাত্র  লিমিট অর্ডার ব্যবহার করে এটিকে আটকাতে পারেন, কিন্তু তারপর আপনার অর্ডার পূরণ নাও হতে পারে।

বাজারের ভিন্ন ভিন্ন পরিস্থিতিতেও তারল্য ব্যাপকভাবে পরিবর্তিত হতে পারে। কোনো  আর্থিক সংকট তারল্যের উপর উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলতে পারে, কারণ বাজারের খেলোয়াড়রা তাদের আর্থিক বাধ্যবাধকতা বা স্বল্পমেয়াদী দায়গুলোর ঘাটতি পূরণ করার জন্য খুব দ্রুত বের হয়ে যেতে চান।


➟ ক্রিপ্টোকারেন্সি দিয়ে শুরু করতে চাইছেন? তাহলে Binance থেকে বিটকয়েন ক্রয় করুন!


শেষ কথা

আর্থিক বাজার বিবেচনা করার সময় তারল্য একটি গুরুত্বপূর্ণ নিয়ামক। সাধারণত, উচ্চ তারল্য আছে এমন বাজারে ট্রেড করা বাঞ্ছনীয়, কারণ আপনি তুলনামূলক স্বাচ্ছন্দ্য সহ পজিশন গ্রহণ এবং পজিশন থেকে বের হতে সক্ষম হবেন।

আপনার কি এখনও তারল্য এবং ট্রেডিং সম্পর্কে কিছু জানার আছে? আমাদের প্রশ্নোত্তর প্ল্যাটফর্ম,  আস্ক অ্যাকাডেমি দেখুন, যেখানে Binance কমিউনিটির সদস্যগণ আপনার প্রশ্নের উত্তর দেবেন।