ট্রেন্ড লাইনের ব্যাখ্যা
সুচিপত্র
ট্রেন্ড লাইন কী?
ট্রেন্ড লাইন যেভাবে ব্যবহার করতে হয়
ট্রেন্ড লাইন আঁকা
স্কেল সেটিংস
শেষ কথা
ট্রেন্ড লাইনের ব্যাখ্যা
হোম
নিবন্ধ
ট্রেন্ড লাইনের ব্যাখ্যা

ট্রেন্ড লাইনের ব্যাখ্যা

প্রকাশিত হয়েছে Sep 9, 2019আপডেট হয়েছে Oct 27, 2022
5m

ট্রেন্ড লাইন কী?

ফাইন্যান্সিয়াল মার্কেটে, ট্রেন্ড লাইন হল চার্টে আঁকা তির্যক রেখা। তারা নির্দিষ্ট ডেটা পয়েন্টগুলোকে সংযুক্ত করে, যা চার্টিস্ট ও ট্রেডারদের জন্য মূল্যের গতিবিধি কল্পনা করা ও মার্কেটের ট্রেন্ড শনাক্ত করা সহজ করে তোলে। 

ট্রেন্ড লাইনগুলোকে টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিসের (TA) সবচেয়ে মৌলিক সরঞ্জামগুলোর মধ্যে একটি হিসেবে বিবেচনা করা হয়। এগুলো স্টক, ফিয়াট মুদ্রা, ডেরিভেটিভ ও ক্রিপ্টোকারেন্সি মার্কেটে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। 

মূলত, ট্রেন্ড লাইনগুলো সাপোর্ট এবং রেজিস্ট্যান্স লেভেলের মতো কাজ করে কিন্তু অনুভূমিক রেখার পরিবর্তে তির্যক দিয়ে তৈরি হয়। সে কারণে, তাদের ধণাত্মক বা ঋণাত্মক ঢাল থাকতে পারে। সাধারণভাবে, রেখার ঢাল যত বেশি হয়, ট্রেন্ড তত বেশি শক্তিশালী হয়।

আমরা ট্রেন্ড লাইনকে দুটি মৌলিক শ্রেণীতে ভাগ করতে পারি: ঊর্ধ্বমুখী (আপট্রেন্ড) এবং নিম্নমুখী (ডাউনট্রেন্ড)। নামেই যা বোঝা যাচ্ছে, কোনো আপট্রেন্ড রেখা নিম্ন থেকে উচ্চতর চার্ট অবস্থানে আঁকা হয়। এটি দুটি বা ততোধিক নিম্ন বিন্দুকে সংযুক্ত করে, যেমনটি নীচের ছবিতে দেখানো হয়েছে।

ট্রেন্ড লাইনের ব্যাখ্যা


বিপরীতে, কোনো ডাউনট্রেন্ড রেখা চার্টের কোনো উচ্চ অবস্থান থেকে নিম্ন অবস্থানে আঁকা হয়। এটি দুই বা ততোধিক উচ্চ বিন্দুকে সংযুক্ত করে।

ট্রেন্ড লাইনের ব্যাখ্যা


সুতরাং, এই দুই ধরণের লাইনের মধ্যে পার্থক্য হল তাদের আঁকার জন্য ব্যবহার করা নির্বাচিত বিন্দুগুলো। কোনো আপট্রেন্ডে, চার্টের সর্বনিম্ন বিন্দুগুলো ব্যবহার করে রেখা আঁকা হবে (অর্থাৎ, ক্যান্ডেলস্টিকের বটমগুলো হাইয়ার লো গঠন করবে)। অন্যদিকে, ডাউনট্রেন্ড রেখাগুলো সর্বোচ্চ ভ্যালু ব্যবহার করে আঁকা হয় (অর্থাৎ, ক্যান্ডেলস্টিকের টপ লোয়ার হাই তৈরি করে)।


ট্রেন্ড লাইন যেভাবে ব্যবহার করতে হয়

কোনো চার্টের হাই ও লো এর উপর ভিত্তি করে, ট্রেন্ড লাইনগুলো নির্দেশ করে যে মূল্য কোথায় সংক্ষিপ্তভাবে প্রচলিত প্রবণতাকে চ্যালেঞ্জ করেছে, পরীক্ষা করেছে এবং তারপরে এর পক্ষে ফিরে গেছে। ভবিষ্যতের গুরুত্বপূর্ণ লেভেলের ভবিষ্যদ্বাণী করার জন্য তারপরে লাইনটি বাড়ানো যেতে পারে। ট্রেন্ড লাইনটি বেশ কয়েকবার পরীক্ষা করা যেতে পারে, তবে যতক্ষণ না এটি ভেঙে যায়, ততক্ষণ এটি বৈধ বলে বিবেচিত হয়।

ট্রেন্ড লাইনগুলো সব ধরণের ডেটা চার্টে ব্যবহার করা গেলেও, এগুলো সাধারণত ফাইনান্সিয়াল চার্টগুলোতে প্রয়োগ করা হয় (মার্কেট মূল্যের উপর ভিত্তি করে)। এগুলো মার্কেটের সরবরাহ ও চাহিদা বিষয়ক ইনসাইট প্রদান করে। স্বাভাবিকভাবেই, ঊর্ধ্বমুখী ট্রেন্ড লাইনগুলো ক্রমবর্ধমান ক্রয়ের চাপকে (সরবরাহের চেয়ে চাহিদা বেশি) নির্দেশ করে। নিম্নগামী ট্রেন্ড লাইনগুলো ধারাবাহিক মূল্য হ্রাস দেখায় যা ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতার বিপরীত পরামর্শ দেয় (চাহিদার চেয়ে সরবরাহ বেশি)।

তবে, এই ধরনের অ্যানালাইসিসে ট্রেডিংয়ের পরিমাণকেও বিবেচনা করতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, যদি মূল্য বাড়তে থাকে কিন্তু ভলিউম কমতে থাকে বা তুলনামূলকভাবে কম হয়, তাহলে এটি বর্ধিত চাহিদার ভুল ধারণা দিতে পারে।

যেমনটি উল্লেখ করা হয়েছে, ট্রেন্ড লাইনগুলো সাপোর্টরেজিস্ট্যান্স লেভেল শনাক্ত করতে ব্যবহৃত হয়, যেগুলো টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিসের দুটি মৌলিক কিন্তু অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ধারণা। একটি আপট্রেন্ড রেখা সেই সাপোর্ট লেভেলকে দেখায় যার নীচে মূল্য কমার সম্ভাবনা নেই। বিপরীতে, ডাউনট্রেন্ড রেখা রেজিস্ট্যান্স লেভেলকে হাইলাইট করে যার উপরে মূল্য বাড়ার সম্ভাবনা নেই।

অন্য কথায়, সাপোর্ট ও রেজিস্ট্যান্স লেভেলগুলো হয় ডাউনসাইডে (আপট্রেন্ড রেখার জন্য) বা আপসাইডে (ডাউনট্রেন্ড রেখার জন্য) ভেঙে গেলে মার্কেটের প্রবণতা অকার্যকর বলে বিবেচিত হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে, এই গুরুত্বপূর্ণ লেভেলগুলো প্রবণতা ধরে রাখতে ব্যর্থ হলে মার্কেটের দিক পরিবর্তনের সম্ভাবনা তৈরি হয়।

তবুও, টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিস কোনো ব্যক্তি নিরপেক্ষ ক্ষেত্র নয়, এবং প্রতিটি ব্যক্তি ট্রেন্ড লাইন আঁকার জন্য সম্পূর্ণ ভিন্ন পদ্ধতি উপস্থাপন করতে পারে। তাই, ঝুঁকি কমাতে একাধিক TA কৌশল এবং পাশাপাশি ফান্ডামেন্টাল অ্যানালাইসিসের সংমিশ্রণ করা কার্যকর হতে পারে।


ট্রেন্ড লাইন আঁকা

টেকনিক্যালি, ট্রেন্ড লাইন কোনো চার্টের যেকোনো দুটি বিন্দুকে সংযুক্ত করতে পারে। কিন্তু, অধিকাংশ চার্টিস্ট এই বিষয়ে একমত যে তিনটি বা তার বেশি পয়েন্টের ব্যবহারই কোনো ট্রেন্ড লাইনকে কার্যকর করে তোলে। কিছু কিছু ক্ষেত্রে, প্রথম দুটি বিন্দুকে সম্ভাব্য কোনো প্রবণতা নির্ধারণ করতে ব্যবহার করা যেতে পারে, এবং তৃতীয় বিন্দুকে (ভবিষ্যতে বর্ধিত করা) এর কার্যকারীতা পরীক্ষা করতে ব্যবহার করা যেতে পারে।

সুতরাং, মূল্য যখন ট্রেন্ড লাইনকে লঙ্ঘন না করে তিন বা তার বেশি বার স্পর্শ করে, তখন প্রবণতাটি কার্যকর বলে বিবেচিত হতে পারে। ট্রেন্ড লাইনটির একাধিক পরীক্ষা ইঙ্গিত দেয় যে প্রবণতাটি মূল্যের ওঠানামার কারণে ঘটে যাওয়া নিছক কোনো কাকতালীয় ঘটনা নয়।


স্কেল সেটিংস

কোনো কার্যকর ট্রেন্ড লাইন তৈরি করার জন্য পর্যাপ্ত বিন্দু বেছে নেওয়ার পাশাপাশি, সেগুলো আঁকার সময় সঠিক সেটিংস বিবেচনা করাও গুরুত্বপূর্ণ। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ চার্ট সেটিংসের মধ্যে রয়েছে স্কেল সেটিংস।

ফাইনান্সিয়াল চার্টে, স্কেল মূল্যের পরিবর্তন দেখানোর পদ্ধতির সাথে সংশ্লিষ্ট। দুটি সর্বাধিক জনপ্রিয় স্কেল হলো অ্যারিথম্যাটিক ও সেমি-লগারিদমিক (সেমি-লগ)। কোনো অ্যারিথম্যাটিক চার্টে, মূল্য Y-অক্ষের উপরে বা নীচে চলে যাওয়ার মধ্য দিয়ে পরিবর্তনকে সমানভাবে প্রকাশ করা হয়। বিপরীতে, সেমি-লগ চার্ট শতাংশের ভিত্তিতে বৈচিত্র্য প্রকাশ করে। 

উদাহরণস্বরূপ, $5 থেকে $10-এ মূল্যের পরিবর্তন কোনো গাণিতিক চার্টে $120 থেকে $125-এ পরিবর্তনের মত একই দূরত্ব কভার করবে। তবে কোনো সেমি-লগ চার্টে, 100% লাভ ($5 থেকে $10) চার্টের অনেক বড় অংশ দখল করবে $120 থেকে $125 সরানোতে হওয়া 4% বৃদ্ধির তুলনায়।

ট্রেন্ড লাইন আঁকার সময় স্কেল সেটিংস বিবেচনা করা গুরুত্বপূর্ণ। প্রত্যেক ধরণের চার্ট ভিন্ন ভিন্ন হাই ও নিম্ন দেখাতে পারে, আর এরফলে ট্রেন্ড লাইন সামান্য ভিন্ন হতে পারে।


শেষ কথা

টেকনিক্যাল অ্যানালাইসিসের জন্য প্রয়োজনীয় টুল হলেও, ট্রেন্ড লাইন কোনো ক্রমেই ভুলের ঊর্ধ্বে নয়। ট্রেন্ড লাইন আঁকতে ব্যবহৃত বিন্দুর পছন্দ, তারা মার্কেট চক্র ও বাস্তব প্রবণতাকে যে মাত্রায় সঠিকভাবে উপস্থাপন করবে সেই মাত্রাকে প্রভাবিত করবে, যেই বিষয়টি এগুলোকে কিছুটা ব্যক্তি নির্ভর করে তোলে। 

উদাহরণস্বরূপ, কোনো কোনো চার্টিস্ট ক্যান্ডেলস্টিকের শরীরের উপর ভিত্তি করে ট্রেন্ড লাইন আঁকেন, উইককে উপেক্ষা করে। অন্যরা উইকের হাই ও লো অনুসারে লাইন আঁকতে পছন্দ করে। 

সুতরাং, অন্যান্য চার্টিং সরঞ্জাম এবং সূচকগুলোর সাথে সম্মিলিতভাবে ট্রেন্ড লাইনগুলো ব্যবহার করা গুরুত্বপূর্ণ। অন্যান্য TA সূচকের উল্লেখযোগ্য উদাহরণগুলোর মধ্যে রয়েছে Ichimoku Clouds, বলিঞ্জার ব্যান্ড (BB), MACD, Stochastic RSI, RSI, এবং মুভিং অ্যাভারেজ