NFT আর্টিস্ট বিপল (Beeple) কে এবং তিনি কেন বিখ্যাত?
সুচিপত্র
ভূমিকা
বিপল কে?
বিপলকে কোন বিষয়টি বিখ্যাত করেছে?
বিপল কিভাবে NFT সম্পর্কে মানুষের ধারণার পরিবর্তন করেছে
NFT-এর ভবিষ্যৎ
শেষ কথা
NFT আর্টিস্ট বিপল (Beeple) কে এবং তিনি কেন বিখ্যাত?
হোম
নিবন্ধ
NFT আর্টিস্ট বিপল (Beeple) কে এবং তিনি কেন বিখ্যাত?

NFT আর্টিস্ট বিপল (Beeple) কে এবং তিনি কেন বিখ্যাত?

প্রকাশিত হয়েছে Sep 29, 2022আপডেট হয়েছে Nov 18, 2022
6m

TL;DR

বিপল একজন আমেরিকান গ্রাফিক ডিজাইনার এবং বিশ্বখ্যাত ডিজিটাল আর্টিস্ট। NFT নিয়ে তার কাজ একটি লিগ্যাসি আর্ট হাউসে বিক্রি হয়েছে এবং জীবিত সবচেয়ে মূল্যবান তিনজন আর্টিস্টের মধ্যে তিনি একজন। অনেকে বিশ্বাস করেন বিপল প্রমাণ করেছে যে শিল্প ডিজিটালও হতে পারে এবং শিল্পের কোনো শারীরিক বৈশিষ্ট থাকতে হবে এমন কোনো কথা নেই। তার কাজ অনেকের কাছে নান্দনিকভাবে চিত্তাকর্ষক হওয়ার পাশাপাশি NFT স্পেসের বিভিন্ন উন্নয়ন ও মার্কেটের কাঠামোগত দিকগুলোও তার জনপ্রিয়তা বৃদ্ধিতে ভূমিকা রেখে থাকতে পারে।

ভূমিকা

বিপল তার ডিজিটাল আর্টের মাধ্যমে নন-ফাঞ্জিবল টোকেন (NFT)-এর প্রতি উল্লেখযোগ্য মনোযোগ তৈরি করতে পেরেছেন। তাই তাকে NFT গ্রহণের ক্ষেত্রে একজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হিসেবে বিবেচনা করা যেতে পারে। এছাড়াও, তার সৃষ্টিগুলো NFT-এর ব্যবহারের ক্ষেত্রের একটি জীবন্ত উদাহরণ, যা অন্যান্য সৃজনশীল পেশাদারদেরকে একই কাজ করার সম্ভাবনার দিকে উদ্বুদ্ধ করতে পারে।

বিপল কে?

বিপল যার প্রকৃত নাম মাইক উইঙ্কেলম্যান, একজন আমেরিকান গ্রাফিক ডিজাইনার এবং ডিজিটাল আর্টিস্ট। NFT শিল্পে খ্যাতি অর্জনের আগে, জাস্টিন বিবার, নিকি মিনাজ এবং চাইল্ডিশ গাম্বিনোর মতো বিখ্যাত ব্যক্তিত্বদের কনসার্টে তার কাজ প্রদর্শিত হয়েছিল।

তার খ্যাতি প্রচলিত আর্ট গ্যালারিতে দীর্ঘ কর্মজীবন বা নন-ফাঞ্জিবল টোকেন (NFT)-এ বিশেষ দক্ষতা থেকে আসেনি। বহু মানুষ তাকে শিল্প প্রকাশের নতুন উপায়টি চেষ্টা করার পরামর্শ দেওয়ায় NFT-এ তার আগমন কিছুটা আকস্মিক ও পরীক্ষামূলক ছিল। আজ, বিপলের 2 মিলিয়নেরও বেশি ইনস্টাগ্রাম ফলোয়ার রয়েছে এবং তিনজন সবচেয়ে মূল্যবান জীবিত আর্টিস্টের মধ্যে একজন।

বর্তমান বিশ্বের ঘটনাবলীকে ব্যঙ্গ করা এবং আধুনিক রাজনীতি ও সংস্কৃতির ব্যাখ্যা তৈরি করার উদ্দেশ্যে বিপলের NFT আর্ট প্রায়শই রাজনীতিবিদ, পপ-সাংস্কৃতিক আইকনের মতো রেফারেন্স ব্যবহার করে। মজার বিষয় হলো, রাজনৈতিক ও সামাজিক ভাষ্য প্রকাশের একটি ভিজিয়্যাল পথ প্রদান করার পাশাপাশি তিনি তার অ্যানিমেটেড আর্ট NFT-এর মাধ্যমে প্রথাগত আর্ট সেক্টরের দৃষ্টি আকর্ষণ করার একটি উপায় খুঁজে পেয়েছেন।

বিপলকে কোন বিষয়টি বিখ্যাত করেছে?

বিপল 2020 সালের ফেব্রুয়ারিতে NFT বিক্রি শুরু করেন। তার প্রথম দিকের প্রকাশনাগুলো শিল্প ও প্রযুক্তি বিশ্বকে বিস্মিত করেছিল, যেগুলোর ডিজিটাল আর্টের বিক্রয় হাজার হাজার ডলারে পৌঁছেছিল। বিপলের বিক্রি করা প্রথম NFT আর্টগুলোর মধ্যে একটির নাম ক্রসরোড। 2020 সালের নভেম্বরের মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ফলাফল অনুসারে পরিবর্তন হবে, এমনভাবে এটিকে ডিজাইন করা হয়েছিল। ব্লকচেইন-নিবন্ধিত আর্ট পিসটি 66,666.66 মার্কিন ডলারে বিক্রি হয় এবং তারপরে 6.7 মিলিয়নে পুনরায় বিক্রি হয়।

বিপলের বড় ঘটনাটি ঘটেছিল লিগ্যাসি অকশন হাউজ ক্রিস্টি'স যখন তার NFT আর্ট পিসটি নিলামের ঘোষণা করেছিল, যা এই ঘটনাকে বড় কোনো অকশন হাউজের করা সম্পূর্ণ ডিজিটাল NFT শিল্প বিক্রির প্রথম ঘটনায় পরিণত করে। এছাড়াও, এই প্রথম ক্রিস্টি'স ইথারকে পেমেন্ট পদ্ধতি হিসেবে গ্রহণ করেছিল।

আর্ট পিসটির নাম ছিল Everydays – The First 5000 Days এবং বিক্রি হয়েছিল 69 মিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি মূল্যে। এটি রঙিন পিক্সেলের একটি সমাবেশের মতো দেখায়, তবে বাস্তবে এখানে 5,000টি আলাদা আলাদা ছবি রয়েছে যা বিপল 13 বছরেরও বেশি সময় ধরে প্রতিদিন তৈরি করেছে।

বিপলের উত্থান তার সময়ের কার্যকর ব্যবহারের কারণে হতে পারে। তিনি NFT স্পেসে প্রবেশ করেন যখন এটি জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করেছিল। আরেকটি পদ্ধতিগত কারণ হতে পারে বিশ্বে কোভিড-19 মহামারীর মতো ব্যাপক আর্থ-সামাজিক পরিবর্তন। ফলস্বরূপ, মানুষজন ডিজিটাল ডিভাইসগুলোতে আরো বেশি সময় ব্যয় করতে শুরু করে, বাড়ি থেকে কাজ করতে শুরু করে এবং আরো সহজে নতুন ডিজিটাল অ্যাপ্লিকেশনগুলোর প্রতি আকৃষ্ট হয়।

বিপল NFT-এর বুম সাইকেলের সময় Everyday-এর NFT বিক্রি করছে। তা স্বত্ত্বেও, হাইপ তৈরি করা যেকোনো সাইকেলের মতো, NFT উন্মাদনার তরঙ্গও পরবর্তীকালে কমে যায়।

বিপল কিভাবে NFT সম্পর্কে মানুষের ধারণার পরিবর্তন করেছে

বিপল বিভিন্ন সফল NFT প্রজেক্টের মাধ্যমে ডিজিটাল আর্টের প্রতি মূলধারার অনেক মনোযোগ আকর্ষণ করছে। উদাহরণস্বরূপ, ডিজিটাল আর্ট বিক্রির বিষয়ে ক্রিস্টি'স-এর পাবলিক ঘোষণা এটি দেখায় যে কিভাবে NFT অভিজাত সংস্কৃতির অংশ হয়ে উঠতে পারে। বৃহত্তর শ্রোতাদের কাছে এটি আরো প্রমাণ করেছে যে শিল্পও ডিজিটাল হতে পারে এবং এর শারীরিক বৈশিষ্ট্য থাকতে হবে এমন কোনো কথা নেই। এছাড়াও, এটি শিল্প ও ব্লকচেইন প্রযুক্তির সংমিশ্রণ এবং এটি যে নতুন সম্ভাবনার সুযোগ সৃষ্টি করে সে সম্পর্কে জনসচেতনতা বৃদ্ধি করেছে।

অনেক আর্টিস্টই মহামারী চলাকালীন NFT-এর কথা বিবেচনা করতে শুরু করেছিলেন কারণ এগুলো শারীরিকভাবে কাজ না করে জীবিকা নির্বাহ করতে আর্টিস্টদের সক্ষম করেছিল। উপরন্তু, এগুলো তাদের সৃজনশীল সাধনা প্রদর্শনের একটি নতুন উপায় প্রদান করে। শুধু ছোট স্বাধীন আর্টিস্টই নয়, প্যারিস হিলটন, এডওয়ার্ড স্নোডেন এবং এমিনেম এর মতো সেলিব্রিটিরাও NFT প্রজেক্ট প্রকাশ করা শুরু করেছেন।

উদাহরণস্বরূপ, স্নুপ ডগ তার অতীত স্মৃতিকে NFT শিল্পের আকারে প্রদর্শন করতে "এ জার্নি উইথ দ্য ডগ" নামে তার প্রথম NFT সংগ্রহ ঘোষণা করেছে। এছাড়াও, কানাডিয়ান মিউজিশিয়ান গ্রিমস 10 টুকরোর একটি NFT আর্ট সংগ্রহ তৈরি করেছেন যা ভবিষ্যতের জগৎ অন্বেষণ করে এবং এটি কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে মিলিয়ন মিলিয়ন ডলার উপার্জন করে।

অনেক বড় বড় তারিকা এই স্পেসে প্রবেশ করার মধ্যে, বিপল-এর কাজ NFT-এর মূলধারায় আসার জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে ভূমিকা পালন করে থাকতে পারে। প্রথমত, তিনি বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত আর্টিস্টদের একজন হয়ে ওঠেন এবং দেখিয়েছিলেন যে নির্মাতারা প্রথাগত প্রকাশক এবং মিডিয়ার উপর নির্ভর না করেও উপার্জন করতে পারেন। দ্বিতীয়ত, তার প্রথম শিল্পকর্মগুলো এমন শিল্প শৈলী প্রদর্শন করেছিল যা শুধুমাত্র ডিজিটাল আকারেই সম্ভব ছিল। NFT জনপ্রিয় হয়ে উঠার অনেক আগে থেকেই তিনি শিল্প তৈরি করে আসছিলেন, তার ডিজিটাল পিভট তাই প্রমাণ করে যে এই নতুন স্থানটি কেবল অর্থের জন্য নয়, আর্টিস্টদের কাজ প্রদর্শনের জন্য নতুন উপায় আবিষ্কারের একটি বিষয়ও বটে।

NFT-এর ভবিষ্যৎ

বিপল তার NFT শিল্পের কারণে বিশ্ব-বিখ্যাত হয়ে উঠেছেন। তবে, NFT-এর স্বল্পতা এবং স্বতন্ত্রতা এগুলোকে গেমিং, মিউজিক এবং ফাইন্যান্সের মতো অন্যান্য ব্যবহারের ক্ষেত্রে উপযুক্ত করে তোলে। উদাহরণস্বরূপ, গেমিং NFT-এর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা বন্দুক এবং জমির প্লটের মতো অনন্য ইন-গেম আইটেমগুলোর সত্যতা প্রমাণ করতে পারে। উপরন্তু, কথিত প্লে-টু- আর্ন NFT গেমগুলো ব্যবহারকারীদের খেলার মাধ্যমে আয় করার সুযোগ প্রদান করে।

এছাড়াও, আর্টের মত, কালেক্টিবল সঙ্গীত তৈরি করতে কোনো NFT-এর সাথে অডিও সংযুক্ত করা সম্ভব। এটি ব্যাপকভাবে জ্ঞাত যে শুধুমাত্র স্বল্প সংখ্যক মিউজিশিয়ান তাদের সঙ্গীত থেকে জীবিকা নির্বাহের জন্য যথেষ্ট উপার্জন করতে পারেন এবং NFT সঙ্গীত শিল্পের ব্যবসায়িক মডেলকে আরো ন্যায়সঙ্গত করে তোলার সম্ভাবনা রাখে। NFT ব্লকচেইন-ভিত্তিক স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম বা ব্লকচেইন রয়্যালটি ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে এই সমস্যার সমাধান করতে পারে।

কনসার্ট এবং ইভেন্টগুলোতে প্রবেশের টিকিট হিসেবেও NFT কাজ করতে পারে, যা এগুলো যে অ্যাক্সেস সরবরাহ করে তার উপর ভিত্তি করে NFT-এর জন্য একটি সেকেন্ডারি মার্কেট তৈরি করে।

2022 সালে NFT মার্কেট এবং তার উদ্দীপনা কিছুটা মন্থর হওয়া সত্ত্বেও, NFT স্পেস নিজের বিকাশ ও নতুন করে উদ্ভাবন অব্যাহত রেখেছে এবং আমরা সম্ভবত NFT-এর অনেকগুলো নতুন ইটারেশন এবং ব্যবহার ক্ষেত্র দেখতে পাবো।

আসলে, এমনকি আপনিও একজন NFT নির্মাতা হতে পারেন। আপনি যদি ইতোমধ্যেই একজন আর্টিস্ট বা কোনো ধরনের ক্রিয়েটর হন, তাহলে NFT আপনাকে কোনো এজেন্সি বা ম্যানেজারের প্রয়োজন ছাড়াই রয়্যালটি উপার্জন করতে সক্ষম করতে পারে। উপরন্তু, প্রচলিত আর্ট গ্যালারির বিপরীতে, অনেক NFT মার্কেটপ্লেস সবাইকে অংশগ্রহণ করতে দেয়। ব্লকচেইন প্রযুক্তি NFT-কে অন্তর্ভুক্তিমূলক করে তোলে। এছাড়াও, NFT ডিজিটাল হওয়ায় আপনি বিশ্বের যেকোনো সাথে আপনার সৃষ্টিগুলোর প্রদর্শনী করতে পারেন। এবং বিপলের মত, হয়ত আপনিও আপনার শিল্পকে সবার দেখার জন্য প্রকাশ করে রাতারাতি স্বীকৃতি পেতে পারেন।

শেষ কথা

বিপল দেখিয়েছেন যে NFT বিতরণ এবং আর্টের মালিকানার একটি কার্যকর মাধ্যম। ডিজিটাল আর্ট ছাড়াও, NFT গেমিং, সঙ্গীত এবং ফাইন্যান্সের মত বর্তমান শিল্প উন্নতির একটি পদ্ধতি প্রদান করে। NFT ইকোসিস্টেম সম্ভবত ভ্যালু তৈরি করার ইউনিক ব্যবহার ক্ষেত্র এবং পদ্ধতিসহ নতুন প্রজেক্টগুলোর সাক্ষী হবে।