যে 5টি BSC মেটাভার্স প্রজেক্ট সম্পর্কে আপনার জানা উচিত
সুচিপত্র
ভূমিকা
মেটাভার্স কী?
মেটাভার্স এবং ব্লকচেইন গেমিং
decentral.games কী?
TopGoal
সাইবার ড্রাগন কী?
এলিয়েন ওয়ার্ল্ডস
SecondLive কী?
শেষ কথা
যে 5টি BSC মেটাভার্স প্রজেক্ট সম্পর্কে আপনার জানা উচিত
হোম
নিবন্ধ
যে 5টি BSC মেটাভার্স প্রজেক্ট সম্পর্কে আপনার জানা উচিত

যে 5টি BSC মেটাভার্স প্রজেক্ট সম্পর্কে আপনার জানা উচিত

প্রকাশিত হয়েছে Nov 11, 2021আপডেট হয়েছে Dec 7, 2022
7m

দাবিত্যাগ: এই নিবন্ধটি শুধুমাত্র শিক্ষাগত উদ্দেশ্যে প্রণীত। Binance-এর সাথে এই প্রজেক্টগুলোর কোনো সম্পর্ক নেই এবং এই প্রজেক্টগুলোর জন্য কোনো অনুমোদন নেই। Binance-এর মাধ্যমে প্রদত্ত তথ্যাদি বিনিয়োগ বা ট্রেডিংয়ের পরামর্শ বা সুপারিশের অংশ নয়। Binance আপনার কোনো বিনিয়োগ সিদ্ধান্তের জন্য দায়িত্ব নেয় না। আর্থিক ঝুঁকি নেওয়ার আগে অনুগ্রহ করে পেশাদার পরামর্শ নিন।


TL;DR

মেটাভার্স হল একটি অনলাইন, ইমার্সিভ স্থান যেখানে ব্যবহারকারীরা 3D পরিবেশে কাজ করতে, খেলতে ও সামাজিকীকরণ করতে পারে। মেটাভার্স এখনও ডেভলপ হচ্ছে, তবে ব্লকচেইন প্রযুক্তি ইতোমধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। BNB স্মার্ট চেইন (BSC) হলো প্লে-টু-আর্ন ব্লকচেইন গেম এবং কমিউনিটি স্যান্ডবক্স নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে এমন অনেক মেটাভার্স প্রজেক্টের আবাসস্থল।

decentral.games ব্যবহারকারীদের গভর্নেন্স মেকানিজমের মাধ্যমে তাদের নিজস্ব ক্যাসিনো খেলতে এবং পরিচালনার সুযোগ প্রদান করে। সাইবার ড্রাগন এবং এলিয়েন ওয়ার্ল্ডস উভয়ই একটি RPG-এর মতো অভিজ্ঞতা প্রদান করে যেখানে খেলোয়াড়দের নিজস্ব চরিত্র, মিশন এবং লুট রয়েছে। TopGoalও গেমিং-সম্পর্কিত হলেও ট্রেডিং কার্ডের মতো ক্রীড়া তারকাদের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য নন-ফাঞ্জিবল টোকেন (NFT) সংগ্রহের উপর ফোকাস করে।

SecondLive মেটাভার্সের প্রতি একটি ভিন্ন পদ্ধতি গ্রহণ করে। এটিতে গেমিং উপাদান থাকলেও প্রকৃত ফোকাস হল কমিউনিটি তৈরি করা এবং প্রজেক্টগুলোকে সংযুক্ত করা। SecondLive সামাজিকীকরণ, কেনাকাটা, ইভেন্ট এবং আরো অনেক কিছুর জন্য একটি 3D পরিবেশ প্রদান করে।


ভূমিকা

ইন্টারনেট, ক্রিপ্টো এবং প্রযুক্তির ভবিষ্যতের ক্ষেত্রে মেটাভার্স সংবাদ ও সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি আলোচিত বিষয়। ফেসবুক এবং মাইক্রোসফটের মত টেক জায়ান্টরা ইতোমধ্যেই তাদের মেটাভার্স পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করছে এবং ক্রিপ্টো বিনিয়োগকারীরা পরবর্তী বড় প্রজেক্টের খোঁজ করছে। তবে, এটি লক্ষণীয় যে আপনি ইতোমধ্যেই BNB স্মার্ট চেইন (BSC) বা ইথেরিয়াম নেটওয়ার্কগুলোতে স্মার্ট কন্ট্রাক্ট ব্যবহারের মাধ্যমে মেটাভার্সটি অনুভব করতে পারেন


মেটাভার্স কী?

মেটাভার্স হলো একটি 3D, অনলাইন স্থানের ধারণা যেখানে মানুষ তাদের বাস্তব-জগত ও ডিজিটাল জীবনকে একসাথে সংযুক্ত করতে পারে। ব্যবহারকারীরা সামাজিকীকরণ করতে পারেন, কাজ করতে পারেন, রিল্যাক্স করতে পারেন এবং ইন্টারনেটের মতো বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম ও এলাকাগুলো অন্বেষণ করতে পারেন। মেটাভার্স আমাদেরকে বর্তমানের তুলনায় আরো উদ্ভাবনী পণ্যসহ আরো বেশি ইমার্সিভ পরিবেশ প্রদান করার চেষ্টা করে।

মেটাভার্সের একটি মূল ড্রাইভিং ফ্যাক্টর হল কোনো অ্যাভাটার বা চরিত্রের সংমিশ্রণে তৈরি অগমেন্টেড রিয়েলিটি। উদাহরণস্বরূপ, আপনি কোনো VR হেডসেট ব্যবহার করে আপনার কাজের মিটিংয়ে যোগ দিতে পারেন, তারপরে আপনার প্রিয় ডিজের সাথে একটি কনসার্ট দেখতে পারেন এবং অবশেষে, আপনার বন্ধুদের সাথে গেমস খেলতে পারেন।

তাহলে, এই সিনারিওতে ক্রিপ্টো কোথায় খাপ খাচ্ছে? ব্লকচেইনের ছয়টি বৈশিষ্ট্য রয়েছে যা এটিকে মেটাভার্সে ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত করে তোলে:

1. মালিকানার ডিজিটাল প্রমাণ: আপনার ক্রিপ্টো ওয়ালেটে থাকা ডিজিটাল পণ্য এবং অ্যাসেটের উপর মালিকানা আপনি সহজেই প্রমাণ করতে পারেন।

2. ডিজিটাল সংগ্রহযোগ্যতা: আমরা ডিজিটাল আইটেম, আর্ট এবং এমনকি ফিজিক্যাল বস্তুর মতো জিনিসগুলোকেও ডিজিটালভাবে কালেক্টিবল করতে পারি। এগুলো নন-ফাঞ্জিবল টোকেন (NFT) নামে পরিচিত।

3. মূল্য স্থানান্তর: আপনি বিশ্বজুড়ে যেকাউকে ক্রিপ্টো দিয়ে নিরাপদে পেমেন্ট করতে পারেন।

4. গভর্নেন্স: ব্লকচেইন জনগণকে কনসেনশাস এবং ভোটিং প্রক্রিয়ার মাধ্যমে একটি ন্যায্যতা ও সমতা বজায় রেখে সিদ্ধান্ত নেওয়ার সুযোগ প্রদান করে।

5. অ্যাক্সেসযোগ্যতা: যেকেউ একটি ক্রিপ্টো ওয়ালেট তৈরি করে এক মিনিটের মধ্যে একটি অনলাইন, ডিজিটাল পরিচয় তৈরি করতে পারে।

6. ইন্টারঅপারেবিলিটি: ব্লকচেইন প্রযুক্তি এমন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতে পারে যা কাস্টোমাইজ করা যায় আবার একইসাথে একে অপরের সাথে কম্প্যাটিবল।

উপরের সবগুলো পয়েন্ট একটি ডিজিটাল মেটাভার্স তৈরির জন্য উপযুক্ত। অন্যান্য বিকল্প থাকলেও ব্লকচেইন একটি স্বচ্ছ ও সাশ্রয়ী উপায়ে এর সমাধান দেয়। তবে ভুলে যাবেন না যে মেটাভার্স আসলে এখনও সম্পূর্ণ নয় এবং পরিপূর্ণভাবে তৈরি করতে বছরের পর বছর সময় লাগবে। বিষয়টি সম্পর্কে আপনি আরো জানতে চাইলে আমাদের মেটাভার্স কী? আর্টিকেলটি পড়ুন।


মেটাভার্স এবং ব্লকচেইন গেমিং

গেমিং এবং মেটাভার্স একটি সাধারণ সংমিশ্রণ যেগুলো ইমার্সিভ, 3D পরিবেশের উপর জোর দেয়। আপনি দেখতে পাবেন যে প্রজেক্টগুলো নিয়ে আমরা আলোচনা করব তার অধিকাংশই ব্লকচেইন গেমিং-সম্পর্কিত, মূলত প্লে-টু-আর্ন এবং গেমফাই উপাদান।

3D স্যান্ডবক্স কী করতে পারে সে সীমানাকে সম্প্রসারিত করার ধারাবাহিকতায় ভিডিও গেম স্পেসটি এই মুহূর্তে আমাদেরকে মেটাভার্সের একটি নিকটতম অভিজ্ঞতা প্রদান করে। উদাহরণস্বরূপ, অনেক গেম এখন কনসার্টের অভিজ্ঞতা এবং অন্যান্য সামাজিক ইভেন্ট অফার করে। আইটেম, স্কিন এবং অন্যান্য ইন-গেম ট্রেডযোগ্য পণ্যগুলোর জন্যও ডিজিটাল অর্থনীতি অত্যন্ত প্রচলিত। ব্লকচেইন প্রযুক্তি এই সকলগুলোকে সক্রিয় করায় এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই যে গেমিং ও মেটাভার্স এত ঘনিষ্ঠভাবে সংযুক্ত হয়ে যাবে। 

আসুন এখন BSC-এর শীর্ষস্থানীয় কিছু মেটাভার্স প্রজেক্ট সম্পর্কে আলোচনা করা যাক এবং দেখুন কিভাবে তারা ব্লকচেইনকে একটি ইমার্সিভ, ডিজিটাল ভবিষ্যতের সাথে একত্রিত করে।


decentral.games কী?

decentral.games হলো একটি মেটাভার্স ক্যাসিনো যা একটি বিকেন্দ্রীভূত স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা (DAO)-এর মাধ্যমে পরিচালিত হয় যেটি NFT-এর মাধ্যমে 3D ভার্চুয়াল ইভেন্টও চালায়। ক্যাসিনোর ইকোসিস্টেমটি তার ইউটিলিটি টোকেন (DG) দ্বারা চালিত হয়। প্লেয়াররা গেম খেলে, তারল্য পুলে তারল্য সরবরাহ করে এবং প্ল্যাটফর্মের হাউস ফান্ড ট্রেজারি বিষয়ক গভর্নেন্স ভোটে অংশগ্রহণ করে DG টোকেন আর্ন করতে পারে।

dgTreasury হলো পেআউটের জন্য ক্যাসিনোর ব্যাংকরোলের উৎস। এটি MANA এবং DAI লেনদেন ফিও নেয় যা ব্যবহারকারীরা ব্ল্যাকজ্যাক ও রুলেটের মতো গেম খেলতে ব্যয় করে। ব্যবহারকারীরা একই সাথে প্যাসিভ ইনকাম জেনারেট করতে পারে ও খেলতে পারে, যা মেটাভার্সের দুটি মূল উপাদানকে একত্রিত করে। আপনার নিজস্ব ক্যাসিনোর মালিক হওয়া, চালানো এবং খেলার ধারণা ব্লকচেইন সহজেই ব্যবস্থা করতে পারে।


TopGoal

TopGoal হলো একটি ট্রেডিং কার্ড গেম যা আনুষ্ঠানিকভাবে ফুটবল খেলোয়াড়, ক্লাব এবং অন্যান্য স্পোর্টস দলকে NFT হিসেবে লাইসেন্স দেয়। হোল্ডাররা অন্য খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে একটি ফ্যান্টাসি ফুটবল-স্টাইলের গেম খেলতে সক্ষম হবে। এই ট্রেডিং কার্ডগুলো পর্যায়ক্রমে এয়ারড্রপ ও বিক্রয়ের মাধ্যমে প্যাকে রিলিজ হয়। TopGoal আপনাকে মাইকেল ওয়েন, রিভালডো ভিটর এবং হোসে মারিয়া গুটিয়েরেজের মতো খেলোয়াড়দের ক্রীড়া ইতিহাসের নির্দিষ্ট মুহূর্তগুলো কেনার সুযোগ দেয়।


সাইবার ড্রাগন কী?

সাইবার ড্রাগন হলো একটি অনলাইন RPG-স্টাইলের খেলা যেটি ডেভলপ করেছে BinaryX। খেলোয়াড়রা NFT হিরো ভাড়া করে এবং বিরল আইটেম ও লুটের অনুসন্ধান করে। গেমের শেষ লক্ষ্য হলো ধনভাণ্ডার সমৃদ্ধ একটি শক্তিশালী বস সাইবার ড্রাগনকে পরাস্ত করা। গেমটি একটি দ্বৈত নেটিভ টোকেন সিস্টেমের মাধ্যমে কাজ করে: BNX একটি গভর্নেন্স টোকেন এবং গোল্ড ইন-গেম কারেন্সি হিসেবে কাজ করে।

খেলোয়াড়দের পেমেন্ট সাইবার ড্রাগনের ট্রেজার হাউসে পাঠানো হয় যা এটিকে সময়ের সাথে সাথে বৃদ্ধি করে। ড্রাগন পরাজিত হয়ে গেলে ট্রেজারটি পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হয়। এছাড়াও ডানজন ও সম্পন্ন করার কাজ আছে, যেমন মাইনিং এবং লগিং। জীবন ও যুদ্ধের দক্ষতার পাশাপাশি হিরোদের ক্লাস ও বৈশিষ্ট্যগুলো গেমটিতে কৌশলের একটি উপাদান যোগ করে।


এলিয়েন ওয়ার্ল্ডস

এলিয়েন ওয়ার্ল্ডস একটি ব্লকচেন NFT গেম যা BNB স্মার্ট চেইন, ইথেরিয়াম ব্লকচেইন এবং WAX-এ পাওয়া যায়। খেলোয়াড়রা ট্রিলিয়াম (TLM) ক্রিপ্টোকারেন্সি অর্জনের জন্য প্রতিযোগিতা করে একটি সাই-ফাই গ্যালাক্সিতে জমির মালিকানা নেয়, যুদ্ধ করে এবং NFT সংগ্রহ করে। প্ল্যাটফর্মের চারটি প্রধান দিক রয়েছে:

1. প্ল্যানেট DAO: ব্যবহারকারীরা যে প্ল্যানেটের অংশ তা কিভাবে চালাতে হয় সে সম্পর্কে অন-চেইন নির্বাচন এবং গভর্নেস ব্যবস্থায় অংশগ্রহণ করতে পারে। এর মধ্যে প্ল্যানেটের ট্রেজারির ফান্ড কিভাবে ব্যয় করা যায় সে বিষয়ক সিদ্ধান্ত অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে।

2. NFT সংগ্রহ করা: এলিয়েন ওয়ার্ল্ডস প্লেয়াররা TLM মাইন করতে, কোয়েস্টগুলো সম্পূর্ণ করতে এবং অন্যান্য খেলোয়াড়দের সাথে লড়াই করতে NFT ব্যবহার করতে পারে। খেলোয়াড়ের কৌশলের সাথে খাপ খায় NFT-এর এমন একটি ডেক তৈরি করা যায়।

3. স্ট্যাকিং: ট্রিলিয়াম হোল্ডাররা তাদের পুরস্কার পুল বাড়াতে ও নির্বাচনকে প্রভাবিত করতে ভোট দেওয়ার জন্য তাদের টোকেনগুলো প্ল্যানেটের পিছনে স্ট্যাক করতে পারেন।

4. ক্রস-চেইন ব্রিজ: ব্যবহারকারীরা তাদের TLM-কে BSC, WAX এবং ইথিরিয়ামের মধ্যে ব্রিজ করতে পারে।


SecondLive কী?

‌SecondLive হলো একটি 3D স্যান্ডবক্স যা ব্যবহারকারীদের সামাজিকীকরণ, কেনাকাটা, কাজ এবং আরো অনেক কিছু করার জন্য একটি ভার্চুয়াল ওয়ার্ল্ড হোস্ট করে। যেকেউ একটি ভার্চুয়াল অ্যাভাটার তৈরি করতে এবং অফারে থাকা স্পেসগুলো অন্বেষণ করার পাশাপাশি নিজেরাই কনটেন্ট তৈরি করতে পারে। আপনার ব্যবহারকারী কর্তৃক তৈরি কনটেন্ট মনেটাইজ করারও সুযোগ রয়েছে। খেলোয়াড়দের ব্যবহারের জন্য চারটি মডিউল নিয়ে SecondLive গঠিত:

1. অ্যাভাটার এডিটর: ব্যবহারকারীরা তাদের কাস্টোম প্লেয়ার ক্যারেক্টারটি এডিটরের মাধ্যমে ডিজাইন করতে পারে এবং মেটাভার্স পরিবেশে এটিকে তাদের পরিচয় হিসেবে ব্যবহার করতে পারে।

2. একাধিক ভার্চুয়াল স্পেস: ব্যবহারকারীরা তাদের অ্যাভাটার ব্যবহার করে গেম, কনসার্ট, আলোচনা, শপিং মল এবং আরো অনেক কিছু অন্বেষণ করতে পারে।

3. সিনারিও এডিটর: কনটেন্ট নির্মাতারা কোডিং দক্ষতার প্রয়োজন ছাড়াই সিনারিও এডিটর ব্যবহার করে তাদের নিজস্ব এলাকা এবং স্পেস ডেভলপ করতে পারে।

4. SecondLive মার্কেটপ্লেস: থার্ড পার্টি ডিজিটাল অ্যাসেটের মালিক যেকেউ SecondLive মার্কেটের মাধ্যমে অ্যাসেটের ব্যবসা করতে পারেন।

SecondLive BSC ইকোসিস্টেম DeFi এক্সিবিশন হলে ডিসেন্ট্রালাইজড ফাইনান্স (DeFi) হার্ভেস্ট ফেসটিভালসহ BNB স্মার্ট চেইন ইভেন্ট হোস্ট করেছে। ইভেন্টে অংশগ্রহণকারীদের জন্য $10,000-এর মাইনিং পুল ও NFT পুরস্কারও ছিল।



শেষ কথা

BSC মেটাভার্স ইকোসিস্টেম এবং কমিউনিটি এখনও অনেকটাই তাদের শুরুতে আছে। মেটাভার্সের গাঠনিক উপাদানগুলো বাড়ছে এবং ধীরে ধীরে একত্রিত হতে শুরু করছে। Axie Infinity এর মতো গেমগুলো টুইটার, টেলিগ্রাম এবং সংবাদের স্পটলাইট ও ট্রেন্ডিংয়ে থাকলেও আমরা সম্ভবত নতুন নতুন প্রজেক্ট নতুন নতুন উপায়ে আবির্ভাব ও উদ্ভাবন করতে দেখব। আপনি BSC মেটাভার্স DApps নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু করতে চাইলে আপনার লেনদেনের ফি-এর জন্য কিছু BNB নিতে ভুলবেন না।